করোনায় প্রাথমিক শিক্ষা ঝুঁকিতে পার্বতীপুরের ২০৭ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সাড়ে ৩৪ হাজার শিশু শিক্ষার্থী

করোনায় প্রাথমিক শিক্ষা ঝুঁকিতে পার্বতীপুরের ২০৭ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সাড়ে ৩৪ হাজার শিশু শিক্ষার্থী

আল মামুন মিলন,পার্বতীপুর(দিনাজপুর)প্রতিনিধি
করোনায় দিনাজপুরের পার্বতীপুরে প্রাথমিকে ২০৭ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ৩৪ হাজার ৫শ ৬৮ জন শিশু শিক্ষা ঝুঁকিতে রয়েছে। করোনার প্রকোপে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসমুহ দীর্ঘ ৪ মাস একটানা বন্ধ থাকায় শিশুরা স্কুল গামী হতে না পেরে এই আশংখ্যার বিষয়টি ধারনা করছেন শিক্ষা শংশ্লিষ্টরা।
শিশুরা বিদ্যালয়মুখী হতে না পারায় সুস্থ্য মেধা বিকাশ ,মান উন্নয়ন ও সহপাটিদের কাছ থেকে দুরে থাকায় বই পড়ার প্রতি মনোযোগী হতে পারছেনা। পাশাপাশি বই পড়ার প্রতি অমনোযোগী মনোভাব গড়ে উঠায় পড়াশুনার প্রতি আগ্রহ কমছে অধিকাংশ শিশুর। ফলে শিশুর শিক্ষা ঝঁকি ক্রমেই বেড়ে চলছে।
উপজেলার প্রাথমিক শিক্ষা অফিস সূত্র জানা যায়, পার্বতীপুর উপজেলায় মোট ২০৭টি প্রাথমিক বিদ্যালয়সমুহের মধ্যে মোট শিশু শিক্ষার্থী রয়েছে ৩৪ হাজার ৫ শ ৬৮ জন। এর মধ্যে পৌর শহরে ১৭ টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে রয়েছে ৩ হাজার ৬০ জন শিশু শিক্ষার্থী। এছাড়াও স্বতন্ত্র এফতেদায়ী মাদ্রাসা রয়েছে ৬টি।
বিষয়টি নিয়ে কথা হলে উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার মোঃ মোস্তাফিজুর রহমান জানান, বিদ্যালয় চালুর বিষয়টি সরকারের সিন্ধান্তের উপর চেয়ে আছি। তবে এই মুহুর্তে¡ বাড়িতে পড়াশুনা চালিয়ে যাওয়ার জন্য অভিভাবকদের প্রতি জানিয়েছি। পার্বতীপুর উপজেলা শিক্ষক সমাজের সাধারন সম্পাদক মোঃ মমিনুল ইসলামের সাথে কথা হলে জানান, করোনার ঝুঁকি এড়াতে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকলেও শিক্ষার্থীদের বই পড়ার প্রতি মনোযোগ দিন দিন কমে আসছে। গত ৮ মার্চ দেশে করোনা সনাক্তের পর থেকে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ হয়ে যায়।

Loading Facebook Comments ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *