কালের বিবর্তনে হারিয়ে যাচ্ছে জাল বোনা

কালের বিবর্তনে হারিয়ে যাচ্ছে জাল বোনা

সত্যেন্দ্র নাথ রায় , ডোমার (নীলফামারী) প্রতিনিধি : এক সময় ছিল যখন কৃষকের জাল বোনার চিত্র হরহামেশাই দেখা যেত । কিন্তু কালের বিবর্তনে হারিয়ে গেছে এমন চিত্র । আগের দিনে গ্রাম বাংলার কৃষকের হাতে যখন কোন কাজ ছিল না তখনই বাড়ির আটাল ঘরে বসে অবসর সময়ে মাছ শিকারের জন্য জাল বুনত কৃষকেরা । বাড়িতে নতুন জামাই এলে সবাই মিলে পুকুর থেকে মাছ শিকারের জন্য ব্যবহার করা হত এই জাল। এমনি জাল বোনার সময় নীলফামারী সদরের লক্ষীচাপ ইউনিয়নের কচুয়া গ্রামের বাসিন্দা জিতেন অধিকারী একান্ত আলাপ চারিতায় বলেন, সাধারণত ভাদ্র মাসের ১৫ তারিখ হইতে কার্তিক মাসের মধ্যে এই সময়টুকু কৃষকের হাতে কোন কাজ থাকত না, তাই আগের দিনে বাপ ঠাকুরদাদারা অবসরকালীন সময়ে অঞ্চল ভিত্তিক নামে নাপি জাল, টানা জাল, বাগ জাল, হোকোশ জাল,সাফজাল, বুনতো। তাদের কাছ থেকেই আমার শেখা,। তিনি আরো বলেন একটি সাফজাল তৈরি করতে সময় লাগে প্রায় ২৫হইতে ৩০দিন । সুতা লাগে প্রায় ৬শত গ্রাম যার বাজারমূল্য ৩০০ থেকে ৩৫০টাকা এবং লোহার কাঠি লাগে ৪-৫কেজি যার মূল্য ৪০০হইতে ৫০০ টাকা । জাল তৈরিতে মোট খরচ হয় ৮০০হইতে ১০০০ টাকা কিন্তু যদি কেউ বাজার থেকে ক্রয় করে হয় তখন মূল্য আনুমানিক ৩৫০০-৩৮০০ টাকা আবার মেশিনের তৈরি জাল থেকে হাতে বোনা জালের মধ্যে আছে বিস্তর পার্থক্য ।

Loading Facebook Comments ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *