- জাগো বাহে 24 - http://www.jagobahe24.com -

কোটচাঁদপুরে হারিয়ে যাওয়া মেয়েকে ফিরে পেতে মা হারা কুড়োনির আহাজারি

ঝিনাইদহঃ
ঝিনাইদহের কোটচাঁদপুর পৌর শহরের সলেমানপুর গ্রামের মেয়ে হারা মা সেলিনা খাতুন কুড়োনি বেগমের আহাজারিতে ভারি হয়ে উঠেছে পৌর শহরের সলেমানপুর গ্রাম। মা সেলিনা খাতুন কুড়োনি বেগম বলেন, ১৪ বছর আগে স্বামী মারা যাওয়ার পর স্বামী’র সামান্য জমির ভীটে বিক্রি করে বড় কষ্টে দুই মেয়ে নিয়ে সলেমানপুর গ্রামে ভাই আসাদুলের আশ্রয়ে চলে আসি। তারও অভাবের সংসার। দিন মুজুরী কাজ করে সংসার চলে তার। যে কারণে নিজেদের ভরণ পোষনের জন্য আমাকে বাড়ী বাড়ী ঝিয়ের কাজ করতে হয়। বেশ কয়েক বছর আগে বড় মেয়েকে বিয়ে দিয়েছি। ছোট মেয়ে চিন্তাকে নিয়ে আমি থাকতাম। মেয়ে চিন্তাকে দিয়েছিলাম বাড়ীর কাছা কাছি রাজা মেম্বারের বাসায় ঝিয়ের কাজের জন্য। সেখানে দেড় দুই বছর কাজ করার পর চিন্তা অনেকটা মানষিক ভারসম্যহীন হয়ে পড়ে। সেখান থেকে মেয়েকে বাড়ীতে নিয়ে আসি। পরে সুস্থ হলে চিন্তাকে বিয়েও দিয়েছিলাম। কিন্তু সে বিয়ে বেশী দিন টেকেনি। পরে মেয়ে চিন্তার মাঝে মধ্যে মানষিক সমস্যা দেখা দিত। চিকিৎসাও চলছিলো। একদিন ভোরবেলা ঘুম থেকে উঠে চিন্তা মাকে বলে নামাজ পড়বে অজু করতে সে ঘরের বাইরে আসে। সেই থেকে মেয়ে নিখোঁজ। কত জায়গা যে খুঁজেছি কোন হদিস পায়নি। চিন্তার মা সেলিনা খাতুন কুড়োনি বলেন, আজ দেড় বছরের বেশী সময় পার হয়ে গেল আমার চিন্তা আমার ময়না পাখি কোথায় কি ভাবে আছে আমি জানিনা। আমার মেয়ের জন্য ঘরে মাথা রাখতে পারিনা। কত মানুষের হাতে পায়ে ধরেছি কেঁদেছি কেউ আমার চিন্তাকে খোঁজ বা এনে দেয়নি। এখনো রাস্তায় রাস্তায় মেয়েকে খুঁজে বেড়েই। যদি সামনে পেয়ে যায় এই আশায়। তোমরা মায়ের কষ্টটা বুঝবেনা বাবা। কথা বলতে বলতে কেঁদে ফেলে পাগলের মত বিলাপ বকতে থাকেন।ওই এলাকার কাউন্সিলর কামাল হোসেন বলেন, মেয়ের শোকে মা সেলিনা খাতুন কুড়োনি পাগলের মত হয়ে গেছে। আমরা সাধ্যমত অনেক জায়গায় খোঁজ নিয়েছি কিন্তু পাইনি। মেয়ে “চিন্তার” কেউ খোঁজ পেলে ভাই আশাদুলের (চিন্তার মামা) এই মোবাইল নম্বরের ০১৮৮৩৯১৭৪৮১ জানানোর জন্য সকলের প্রতি আকুল আবেদন জানিয়েছেন মা সেলিনা খাতুন কুড়োনি।