গাইবান্ধায় নিজ মেয়েকে ধর্ষণের দায়ে লম্পট পিতা গ্রেফতার দোষ স্বীকার করে আদালতে জবানবন্দি

গাইবান্ধায় নিজ মেয়েকে ধর্ষণের দায়ে লম্পট পিতা গ্রেফতার দোষ স্বীকার করে আদালতে জবানবন্দি

ছাদেকুল ইসলাম রুবেল, গাইবান্ধাঃ গাইবান্ধার সাদুল্যাপুরে পিতার বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ এনে গত ২রা ফেব্রুয়ারী সাদুল্যাপুর থানায় মামলা করে ধর্ষণের স্বীকার হওয়া কন্যা।পরবর্তীতে ১৬ ই ফেব্রুয়ারিতে মামলাটির তদন্তের দায়িত্ব দেওয়া হয় পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই) গাইবান্ধাকে অবশেষে ৫ মাস তদন্তে ধর্ষক পিতাকে গ্রেফতার ও ধর্ষণের রহস্য উৎঘাটন করেছে পিবিআই।
থানায় দায়েরকৃত মামলা সুত্রে জানা যায়,গাইবান্ধার
সাদুল্যাপুর উপজেলার শ্রীকলা গ্রামের মোখলেছুর রহমানের কন্যার সাথে চার বছর পূর্বে একই উপজেলার গোপালপুর গ্রামের জামাত আলীর পুত্র রজ্জব আলীর সাথে বিবাহ হয়।বিবাহের পর তাদের ঘরে একটি পুত্র সন্তানের জন্ম হয়।ঐ সময় ঐনারীর স্বামী রজ্জব ঢাকায় কাজ করতো।তখন ঢাকায় স্বামী কাজ করতে গেলে সে তার সন্তান নিয়ে তার পিতার বাড়িতে যায়। ভিকটিমের মা প্যারালাইসিস রোগী।
ঐ কারণে প্রায়ই রাতের বেলা তার পিতা মোঃ মোখলেছুর রহমান তার শয়ন ঘরে মেয়ের বিছানায় যায় এবং তাকে বিভিন্নভাবে যৌন উত্তেজিত করে ও ফুসলিয়ে ধর্ষণ করে।একই কায়দায় বিভিন্ন সময়ে একাধিকবার ধর্ষণ করে।
সর্বশেষ ১৫ ডিসেম্বর-১৯ খ্রিঃ তারিখে দুপুর অনুমান ১২ ঘটিকার সময় তার মা বাড়িতে না থাকায় তার পিতা এজাহারনামীয় একমাত্র আসামী মোঃ মোখলেছুর রহমান বাড়ির রান্না ঘরের ভিতর ডেকে নিয়ে মাটিতে শোয়াইয়ে জোরপূর্বক ইচ্ছার বিরুদ্ধে ধর্ষণ করে।এরপর ঐনারী বিষয়টি তার স্বামীকে জানিয়ে সে নিজে বাদী হয়ে গত ২রা ফেব্রুয়ারী তার পিতা মোখলেছুর রহমানকে একমাত্র আসামী করে সাদুল্যাপুর থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনের ৯(১)। জিআর নং-৩৪/২০২০ এর ধারায় মামলা দায়ের করে।মামলা নং-১৮।মোখলেছুর রহমান শ্রীকল গ্রামের মৃত কিনা মাসুদ ওরফে কিনা মাসুদ এর পুত্র।
তারপর ১৬ ফেব্রুয়ারী পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই), গাইবান্ধা জেলা অত্র মামলাটির তদন্তভার গ্রহণ করে।তদন্তে এসআই (নিঃ) মোঃ এমদাদুল হক প্রামানিককে আই/ও নিয়োগ করে। ডিআইজি পিবিআই বনজ কুমার মজুমদার বিপিএম(বার), পিপিএম এর তত্ত্বাবধান ও দিক নির্দেশনায় পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই), গাইবান্ধা জেলার পুলিশ সুপার এ আর এম আলিফ এর তদন্ত তদারকিতে মামলাটির তদন্তকারী কর্মকর্তা ধর্ষণের অপরাধ সংঘটনকারী সম্পর্কে বিশদ তদন্ত করে এজাহারনামীয় একমাত্র আসামী মোঃ মোখলেছুর রহমান (৫০) দীর্ঘদিন পলাতক থাকায় অবশেষে তথ্য প্রযু্ক্িত ব্যবহার করে নরসিংদী জেলার পলাশ থানাধীন ডাঙ্গা কাজিরচর এলাকা হতে গত ২৬ জুলাই গ্রেফতার করেন।
গ্রেফতারের পর এজাহারনামীয় একমাত্র আসামী মোখলেছুর রহমান জিজ্ঞাসাবাদে অত্র মামলার ঘটনায় উল্ল্যেখিত ধর্ষণ সে করেছে বলে স্বীকার করে। এরপর বিজ্ঞ আদালতে উপস্থাপন করলে সে কু-প্রবৃত্তির তাড়নায় নিজের মেয়ে কে ধর্ষণ করার কথা স্বীকার করে ফৌঃকাঃবিঃ ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে।মঙ্গলবার(২৮জুলাই) এক প্রেস বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে এ তথ্য জানিয়েছেন পিবিআই পুলিশ সুপার এ আর এম আলিফ।

Loading Facebook Comments ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *