চিকিৎসাবিজ্ঞানে চলতি বছরের নোবেল পুরস্কার পেলেন যুক্তরাষ্ট্র ও যুক্তরাজ্যের তিনজন

চিকিৎসাবিজ্ঞানে চলতি বছরের নোবেল পুরস্কার পেলেন যুক্তরাষ্ট্র ও যুক্তরাজ্যের তিনজন

ডেস্ক: প্রকৃতিতে প্রাপ্য অক্সিজেন প্রাপ্যতা পরিবর্তনের সঙ্গে প্রাণিকোষ কীভাবে মানিয়ে নেয়, তার রহস্য উম্মোচন করে চিকিৎসাবিজ্ঞানে চলতি বছরের নোবেল পুরস্কার জিতে নিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্র ও যুক্তরাজ্যের তিনজন। গতকাল সোমবার সুইডেনের ক্যারোলিনস্কা ইনস্টিটিউট চিকিৎসাবিজ্ঞানে চলতি বছরের নোবেল পুরস্কার বিজয়ীদের নাম ঘোষণা করে। এ আবিষ্কারের ফলে রক্তশূন্যতা, ক্যানসারসহ বিভিন্ন ধরনের চিকিৎসায় যুগান্তকারী পরিবর্তন আসবে বলে সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন। খবর: বিবিসি, সিএনএন, রয়টার্স।
চিকিৎসায় নোবেল বিজয়ী তিনজন হলেন যুক্তরাষ্ট্রের উইলিয়াম জি কায়েলিন ও গ্রেগ এল সেমেনজা এবং যুক্তরাজ্যের স্যার পিটার জে র‌্যাটক্লিফ। তাদের উদ্ভাবনের ফলে আমাদের দৈনন্দিন কাজের বিভিন্ন পর্যায়ে অক্সিজেনের প্রভাব সম্পর্কে জানা সম্ভব হয়েছে। এছাড়া প্রতিদিনের ব্যায়াম থেকে শুরু করে গর্ভে বেড়ে ওঠাসহ নানা ক্ষেত্রে এর কর্মকাণ্ড জানা যাবে।
মূলত প্রকৃতিতে অক্সিজেনের বিভিন্ন পর্যায়ের প্রাপ্যতার সঙ্গে প্রাণিদেহের কোষ কীভাবে মানিয়ে নেয়, তাও বের করেছেন তিন চিকিৎসাবিজ্ঞানী। এই উদ্ভাবনই তাদের চলতি বছরের নোবেল পুরস্কার এনে দিয়েছে। তাদের গবেষণার ফলে এখন থেকে রক্তশূন্যতায় নতুন ধরনের চিকিৎসা পদ্ধতি শুরু করা সম্ভব হবে। এছাড়া ক্যানসারের মতো আরও অনেক জটিল রোগের চিকিৎসায়ও এ গবেষণা দারুণ কাজে আসবে।
সুইডিশ একাডেমি জানিয়েছে, কয়েক শতাব্দী আগেই অক্সিজেনের মৌলিক গুরুত্ব সম্পর্কে জানা সম্ভব হয়েছে। তবে অক্সিজেনের মাত্রার পরিবর্তনের সঙ্গে প্রাণিকোষ কীভাবে মানিয়ে নেয়, তা দীর্ঘদিন ধরেই অজানা ছিল। সুইডেনের ক্যারোলিনস্কা ইনস্টিটিউটের অধ্যাপক র‌্যানডাল জনসন বলেন, বেঁচে থাকার জন্য অক্সিজেন গুরুত্বপূর্ণ। বস্তুত, সব প্রাণিকোষেই এর ব্যবহার রয়েছে। এ গবেষণার মাধ্যমে আমরা কোষগুলো কীভাবে কাজ করে, সেই মৌলিক তথ্য জানতে পারছি।
এবার নোবেল বিজয়ীদের মধ্যে যুক্তরাজ্যের অক্সফোর্ড ইউনিভার্সিটি ও ফ্রান্সিস ক্রিক ইনস্টিটিউটের স্যার পিটার জে র‌্যাটক্লিফ রয়েছেন। এছাড়া যুক্তরাষ্ট্রের হার্ভার্ড ইউনিভার্সিটির উইলিয়াম জি কায়েলিন এবং জন হপকিন্স ইউনিভার্সিটির গ্রেগ এল সেমেনজা নোবেল জিতেছেন। তারা তিনজন এবার নোবেল পুরস্কারের ৯০ লাখ সুইডিশ ক্রোনার ভাগ করে নেবেন।
নোবেল কমিটির সদস্য থমাস পার্লম্যান বিশ্বের সবচেয়ে মর্যাদার এ পুরস্কারের ঘোষণার পর বলেছেন, এবারের বিজয়ী তিনজনই পুরস্কার জিতে অত্যন্ত খুশি। তারা সবাই এবারের পুরস্কার ভাগাভাগি করতে পেরে গর্বিত। আগামী ১০ ডিসেম্বর সুইডেনের রাজধানী স্টকহোমে তাদের হাতে এ পুরস্কার তুলে দেওয়া হবে।
বিবিসির প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে, আমাদের প্রতিটি নিঃশ্বাসই অক্সিজেন। খাদ্যকে ব্যবহারযোগ্য শক্তিতে পরিণত করতে মানব শরীর এর ব্যবহার করে। তবে নানা কারণে শরীরে অক্সিজেনের মাত্রা পরিবর্তন হয়। বিশেষ করে ব্যায়াম, উচ্চতা কিংবা কোনো কারণে রক্তের সরবরাহ বাধাপ্রাপ্ত হলে। যখন অক্সিজেনের মাত্রা কমে যায়, তখন তার সঙ্গে বিপাক প্রক্রিয়াকে খাপ খাইয়ে নিতে বাধ্য করে কোষ।
আজ মঙ্গলবার পদার্থে, আগামীকাল বুধবার রসায়নে নোবেল বিজয়ীদের নাম ঘোষণা করা হবে। এছাড়া বৃহস্পতিবার আসবে সাহিত্যে নোবেল বিজয়ীর নাম। আর আগামী শুক্রবার শান্তি ও ১৪ অক্টোবর অর্থনীতিতে এবারের নোবেল বিজয়ীর নাম ঘোষণা করা হবে। গত বছর এক জুরির স্বামীর বিরুদ্ধে যৌন নিপীড়নের অভিযোগ ওঠায় সাহিত্যের নোবেল পুরস্কার ঘোষণা স্থগিত করা হয়। সে কারণে এবার ২০১৮ ও ২০১৯ সালের নোবেল বিজয়ীদের নাম একসঙ্গে ঘোষণা করা হবে।
গত বছর মানবদেহের রোগ প্রতিরোধ ব্যবস্থা কাজে লাগিয়ে ক্যানসার চিকিৎসার নতুন পদ্ধতি উদ্ভাবনের জন্য যুক্তরাষ্ট্রের জেমস পি অ্যালিসন ও জাপানের তাশুকু হোনজো চিকিৎসায় নোবেল পান।

Loading Facebook Comments ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *