চিরঘুমে মহীনের অন্যতম ‘ঘোড়া’ শিল্পী রঞ্জন ঘোষাল, শোকের ছায়া বাংলা সংগীত জগতে

চিরঘুমে মহীনের অন্যতম ‘ঘোড়া’ শিল্পী রঞ্জন ঘোষাল, শোকের ছায়া বাংলা সংগীত জগতে

মারা গেছেন সত্তর দশকের সাড়া জাগানো রক ব্যান্ড ‘মহীনের ঘোড়াগুলি’র প্রতিষ্ঠাতা সদস্য রঞ্জন ঘোষাল। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৬৫ বছর।

স্ত্রী সঙ্গীতা ঘোষাল ও দুই পুত্রের সঙ্গে বেঙ্গালুরুতে বসবাস করে আসছিলেন‘মহীনের ঘোড়াগুলো’র অন্যতম এই ঘোড়া। বৃহস্পতিবার ভোরে নিজের বাড়িতে ঘুমের মধ্যেই বিদায় নেন রঞ্জন ঘোষাল। ভারতীয় সংবাদ মাধ্যমকে এমনটাই জানিয়েছেন তার পরিবার।

হাইপ্রেসারের সমস্যা ছিল রঞ্জন ঘোষালের। পাশাপাশি গত বছর তার বিরুদ্ধে মিটু অভিযোগ উঠায় মানসিকভাবেও বিপর্যস্ত ছিলেন এই শিল্পী।

অভিযোগ ছিল ফেসবুক মেসেঞ্জারে এক ছাত্রীকে কুপ্রস্তাব দেন রঞ্জন ঘোষাল। ঘটনা ২০১৯-এর অক্টোবরের। সেই নিয়ে শোরগোল পড়ে গিয়েছিল সোশ্যাল মিডিয়ায়। পরে নিজের মুহূর্তের ভুল স্বীকার করেন নিয়ে ফেসবুকে নিঃশর্ত ক্ষমা প্রার্থনা করেন রঞ্জন ঘোষাল। সেটাই ছিল তাঁর শেষ ফেসবুক পোস্ট। তারপর থেকে গত ৮ মাস যাবত সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে দেখা মেলেনি তাঁর। নিজেকে গুটিয়ে নিয়েছিলেন রঞ্জন ঘোষাল।

১৯৭৪ সালে গৌতম চট্টোপাধ্যায়ের নেতৃত্বে সাত সদস্য মিলে তৈরি করেছিলেন ‘মহীনের ঘোড়াগুলি’। শুরুতে ব্যান্ডটির নাম ছিল সপ্তর্ষি। রঞ্জন ঘোষালই ‘মহীনের ঘোড়াগুলি’ নামটি প্রস্তাব করেছিলেন।

রঞ্জন ঘোষালের মৃত্যুর খবর শোনে এদিন ‘মহীনের ঘোড়াগুলি’র অন্যতম সদস্য প্রদীপ চট্টোপাধ্যায় বন্ধুকে স্মরণ করে ফেসবুকে লেখেন, ‘আরও একসাথে কিছু কাজ বাকি ছিল! কত কী করার আছে বাকি…’

সংবিগ্ন পাখিকূল ও কলকাতা বিষয়ক (১৯৭৭), অজানা উড়ন্ত বস্তু বা অ-উ-ব (১৯৭৮) এবং দৃশ্যমান মহীনের ঘোড়াগুলি (১৯৭৯) এই তিন অ্যালবাম ভারতীয় রক মিউজিকের মাইলস্টোন। আশির দশকের গোড়ায় ব্যান্ড ছেড়ে নিজেদের কর্মজগতে ব্যস্ত হয়ে পড়েন সকলে, তবে ১৯৯৫ সালে ফের মুক্তি পায় মহীনের ঘোড়াগুলির ‘আবার বছর কুড়ি পরে’। এই অ্যালবামেরই গান ‘পৃথিবীটা নাকি ছোট হতে হতে’-যা আজকের জেনারেশনের কাছেও ততটাই জনপ্রিয়।

সঙ্গীতের পাশাপাশি রঞ্জন ঘোষাল, ইংরেজি ও বাংলা ভাষায় একাধিক কবিতা, গল্প এবং চলচ্চিত্র ও মঞ্চ নাটকের জন্য চিত্রনাট্য রচনা করেছেন। বেঙ্গালুরুতে স্ত্রী সঙ্গীতার গ্রুপ থ্রি নামে একটি থিয়েটার দলের সঙ্গে ইংরেজি নাটক পরিচালনা এবং পারফর্ম করতেন রঞ্জন ঘোষাল।-হিন্দুস্তান টাইমস

Loading Facebook Comments ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *