জামালপুরের ডিসির আপত্তিকর ভিডিও নিয়ে মুখ খুললেন অতিরিক্ত সচিব 

জামালপুরের ডিসির আপত্তিকর ভিডিও নিয়ে মুখ খুললেন অতিরিক্ত সচিব 

ডেস্কঃ জামালপুরের জেলা প্রশাসক (ডিসি) আহমেদ কবীরের একটি অন্তরঙ্গ ভিডিও ফুটেজ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে। সেখানে এক নারী অফিস সহকারীর সঙ্গে ঘনিষ্ঠ হতে দেখা যায় ডিসিকে। ওই ভিডিওটি ভাইরাল হওয়ার পর থেকে বিভিন্ন মহলে তোলপাড় ও ধিক্কারের ঝড় উঠেছে। সোশ্যাল মিডিয়ায় তীব্র আ’ক্রমণ করা হচ্ছে এই জেলা প্রশাসককে।

এবার ডিসি আহমেদ কবীরের আপ’ত্তিকর ভিডিও প্রকাশের বি’ষয়ে বিভিন্ন বিভাগ থেকে তদন্ত হচ্ছে বলে জানিয়েছেন মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের অতিরিক্ত সচিব আব্দুল গাফফার খান।

আজ শনিবার (২৪ আগস্ট) সকালে গণমাধ্যমকে এতথ্য জানান তিনি। এই অতিরিক্ত সচিব আরও জানান, মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকেও বি’ষয়টি খতিয়ে দেখা হবে।

তিনি বলেন, এক নারী অফিস সহকারীর সঙ্গে জামালপুরের জেলা প্রশাসক আহমেদ কবীরের আপ’ত্তিকর ভিডিও প্রকাশের বি’ষয়ে অবগত আছে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ। বিভাগের কর্মকর্তারা প্রাথমিকভাবে বি’ষয়টি খতিয়ে দেখছেন। অফিস খুললে বি’ষয়টি তদন্তের জন্য কমিটি গঠন করবে মাঠ প্রশাসনের দেখাশোনার দায়িত্বে থাকা মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ।

এর আগে, শুক্রবার (২৩ আগস্ট) দুপুরে জেলা সার্কিট হাউজে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে আপ’ত্তিকর ভিডিওটি বানানো বলে দাবি করেন জেলা প্রশাসক আহমেদ কবীর।

সাংবাদিকদের কাছে আহমেদ কবীর ঘটনাটি ক্ষ’মাসুন্দর দৃষ্টিতে দেখার আহ্বান জানান। যদিও তিনি স্বীকার করেন, ভিডিওটিতে দেখানো কক্ষটি তার অফিসের বিশ্রাম নেওয়ার কক্ষ এবং ভিডিও’র ওই নারী তার কার্যালয়ের ‘অফিস সহায়ক’ হিসেবে কর্মরত।

আহমেদ কবীর বলেন, ‘আমি মানসিকভাবে খুবই বিপর্যস্ত অবস্থায় আছি। আপনারা আমাকে একটু সময় দিবেন। প্রকৃত ঘটনা জানতে বি’ষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে। আপনারা ক্ষ’মা সুন্দর দৃষ্টিতে দেখবেন।’

ভিডিওটির প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘এটি একটি সাজানো ভিডিও। একটি হ্যাকার গ্রুপ দীর্ঘদিন ধরে নানাভাবে ভয়ভীতি দেখিয়ে আমাকে ব্ল্যা’কমেইল করার চেষ্টা করছিল। আমি বি’ষয়টি গুরুত্ব দেইনি। বানোয়াট ভিডিওটি একটি ফেক আইডি থেকে পোস্ট দেয়া হয়।’

৪ মিনিট ৫২ সেকেন্ডের ভিডিওটিতে দেখা যায়, আহমেদ কবীর তার অফিসের গো’পনীয় কক্ষের বেডরুমে একজন নারীকে জড়িয়ে ধরে চুমু খাচ্ছেন এবং ওই নারীর শরীরের বিভিন্নস্থানে হাত বুলিয়ে আদর করছেন। এক পর্যায়ে ওই নারী জেলা প্রশাসকের ওই কক্ষের খাটে উঠেন।

জানা যায়, জেলা পর্যায়ের সর্বোচ্চ পদধারী এই সরকারি কর্মকর্তা তার অফিসেই একজন নারীর সাথে অ’বৈধ মেলামেশার এই ভিডিওটি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে ‘খন্দকার সোহেল আহমেদ’ নামের একটি পেজ থেকে আপলোড হয় গত ১৫ আগস্ট বিকেলের দিকে। ফেসবুক আইডি থেকে এটি ভাইরাল হয়ে যাওয়ায় গত বৃহস্পতিবার বিকেল থেকে ব্যাপকহারে নজরে আসতে থাকে ফেসবুক আইডি ব্যবহারকারীদের কাছে। এ নিয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে তুমুল তোলপাড় এবং ধিক্কারের ঝড় ওঠে।

উল্লেখ্য, জেলা প্রশাসক আহমেদ কবীর জামালপুরে যোগদান করেছেন ২০১৭ সালের ২৭ মে। যোগদানের কিছুদিন পর থেকেই তিনি তার অফিসের কক্ষের পাশে ছোট্ট একটি কক্ষে ধূমপান ও ব্যক্তিগত সরকারি গো’পনীয় বৈঠকের জন্য কক্ষটি ব্যবহার করে আসছেন। সম্প্রতি ওই কক্ষে বিশ্রাম নেওয়ার জন্য একটি খাট বসানো হয়েছে। তাতে বিশ্রাম নেওয়ার মতো বালিশ, চাদর সবকিছুই আছে।

Loading Facebook Comments ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *