ডিমলায় চালককে ফেলে দিয়ে অটোবাইক নিয়ে পালানোর সময় নারী সহ আটক ৩

ডিমলায় চালককে ফেলে দিয়ে অটোবাইক নিয়ে পালানোর সময় নারী সহ আটক ৩

এম,আই সুজন,ক্রাইম রিপোর্টার নীলফামারী॥নীলফামারীর ডিমলায় চালককে অচেতন করে ফেলে দিয়ে ব্যাটারী চালিত অটোবাইক চুরি করে পালানোর সময় এলাকাবাসীর হাতে এক নারী সহ চোর চক্রের তিন সদস্যকে হাতে-নাতে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেছেন এলাকাবাসী।এ ঘটনায় ওই অটো চালকের পিতা বাদী হয়ে ডিমলা থানায় একটি মামলা দায়েরের পর পুলিশ শনিবার(৮ আগস্ট)বিকেলে গ্রেফতারকৃতদের আদালতে হাজির করলে তারা তিনজনেই আদালতের কাছে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তি মুলক জবানবন্দী প্রদান করেন।
এলাকাবাসী ও মামলা সুত্রে জানা গেছে,গত বৃহস্পতিবার(৬ আগস্ট)লালমনিরহাট জেলার পাটগ্রাম থানার পুর্ব জগতবেড় ভোটহাটখাতা গ্রামের নুরজামাল ইসলামের পুত্র রাশেদ ইসলাম(১৮)প্রতিদিনের ন্যায় অটোবাইক ভাড়ায় চালানোর উদ্যেশ্যে তা নিয়ে বাড়ি থেকে বেড়িয়ে পাটগ্রাম অটোবাইক স্ট্যান্ডে যায়।দুপুরে অটোবাইক চোর চক্রের এক নারী সহ চারজন যাত্রীবেশে পাটগ্রাম হতে নীলফামারীর জলঢাকায় যাবার জন্য ওই অটোবাইকটি নয়শত টাকায় ভাড়া করে তাতে করে রওনা দিয়ে পথে লালমনিরহাটের হাতীবান্ধা থানাধীন তিস্তা ব্যারেজে পৌছালে তারা(চোর চক্র)কৌশলে পানির সাথে অটোচালককে চেতনানাশক ঔষধ মিশিয়ে খাওয়ান।পরে অটোচালক পুনরায় তাদের নিয়ে জলঢাকার উদ্যেশ্যে রওনা দিয়ে ডিমলা উপজেলার খালিশা চাপানী ইউনিয়নের ডালিয়া ১ নম্বর বাজারে পৌছে অচেতন হয়ে পড়লে চোর চক্রের সদস্যরা অটোটি চালিয়ে বিকেলে একই ইউনিয়নের বাঘেরপুলের ৫শত গজ দক্ষিনে ফাকা জায়গার পাকা রাস্তার ধারে তিস্তা ক্যানেলের পাশে প্রকৃত অটো চালককে অটোবাইক থেকে অচেতন অবস্থায় ফেলে দিয়ে অটোবাইকটি নিয়ে দ্রুত পালিয় যেতে থাকেন।স্থানীয় লোকেরা অটোচালককে ফেলে দিতে দেখে অটোবাইকটিকে ধাওয়া করে উপজেলার ঝুনাগাছ চাপানী ইউনিয়নের কাকড়া বাজারের সংলগ্ন পাকা রাস্তা থেকে অটোবাইকটি সহ নীলফামারীর জলঢাকার উত্তর কাজিরহাট গ্রামের মজনু মিয়া ওরফে মজনু কসাইয়ের ছেলে আব্দুল আজিজ(২৩),একই উপজেলার ইসমাইল মাঝাপাড়া গ্রামের দেলেয়ার হোসেনের ছেলে কামাল হোসেন(২৬) ও জেলার কিশোরগঞ্জ উপজেলার মাগুড়া মাষ্টারপাড়া গ্রামের এন্তাজুল ইসলামের মেয়ে লাকী খাতুন(৩০)কে আটক করেন।এ সময়ে ওই চক্রের আরো একজন পালিয়ে যায়। স্থানীয়রা জরুরি সেবা ৯৯৯ এ ফোন করে জানালে ডিমলা থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে চোর চক্রের ওই তিন সদস্যকে আটক ও অটোবাইকটি উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসেন।পরে অটোবাইকটিতে লেখা শো রুমের মোবাইল নম্বরে কল করে ঘটনাটি জানালে শো রুমের কর্মচারী অটোবাইক চালকের পিতাকে খবর দিলে তার পিতা নুরজামাল এসে ঘটনা জেনে আটককৃত ৩ জন সহ নামীয় ৪ জন ও অজ্ঞাত আরো ৩/৪ জনকে আসামী করে ডিমলা থানায় মামলা নং ০৭, তারিখ ৭/৮/২০২০ইং দায়ের করেন।পরে পুলিশ আটককৃতদের ওই মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে শনিবার(৮ আগস্ট)দুপুরে আদালতে হাজির করলে গ্রেফতারকৃতরা আদালতের বিজ্ঞ বিচারকের কাছে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমুলক জবানবন্দী প্রদান করেন।
ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার(ডোমার-ডিমলা সার্কেল)জয়ব্রত পাল বলেন,গ্রেফতারকৃতরা আদালতে নিজেদের অপরাধ স্বীকার করে স্বীকারোক্তিমুলক জবানবন্দী প্রদান করায় আদালতের বিজ্ঞ বিচারক তাদের কারাগারে প্রেরণ করেন।এ ঘটনায় পলাতক আসামীদেরও গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

Loading Facebook Comments ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *