ঢাকাকে হারিয়ে রংপুরের বিদায়

ঢাকাকে হারিয়ে রংপুরের বিদায়

বঙ্গবন্ধু বিপিএলে নিজেদের শেষ ম্যাচে ঢাকা প্লাটুনকে ১১ রানে হারিয়েছে আগেই আসর থেকে বিদায় নেওয়া রংপুর রেঞ্জার্স। তাসকিন-মোস্তাফিজদের বোলিং তান্ডবে পরাজিত হয় ১৪৯ রানের লক্ষ্যে খেলতে নামা ঢাকা।

লক্ষ্যে নিয়ে খেলতে নেমে শুরুতেই চাপে পড়ে ঢাকা প্লাটুন। ৫ রান করে আল-আমিনের দারুণ একটি থ্রোতে দুর্ভাগ্যক্রমে রান আউটের শিকার হন ওপেনার এনামুল হক বিজয়। এরপর দলীয় ৫৫ রানে ২০ রান করা মেহেদীকে ফেরান আরাফাত সানি।

পরবর্তীতে মুমিনুলকে নিয়ে ২৪ রানের জুটি গড়ে ৩৩ বলে ৩৪ রান করে সানির দ্বিতীয় শিকার হয়ে ফিরেন তামিম ইকবাল। কিছুক্ষণ পর ১৪ বলে ১৮ রানে বিদায় নেন মুমিনুল হক।

এরপর বিপর্যয় সামাল দিতে পারেনি ঢাকা প্লাটুনের মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যানরা। নিয়ম বিরতিতে উইকেট হারাতে থাকে। যেখানে প্রয়োজন ২৪ বলে ৪১ রান হাতে ছিল ৪ উইকেট। পরবর্তীতে আর কেউ দাঁড়াতে না ৯ উইকেট হারিয়ে ১৩৮ রান তুলতে সক্ষম হয় ঢাকা প্লাটুন।

রংপুরের হয়ে বল হাতে তাসকিন, জুনায়েদ, সানি নেন ২টি করে উইকেট।

এর আগে টস হেরে ব্যাট করতে নেমে এদিন সুবিধা করতে পারেননি রংপুরের অধিনায়ক শেন ওয়াটসন। মাশরাফির দুর্দান্ত বলে ১০ রান করে ফিরেন এই অজি ব্যাটসম্যান। এদিন দাঁড়াতে পারলেন না নাঈম শেখ ও ডেলপোর্ট। মেহেদী হাসানের বলে ৬ রান করে ডেলপোর্ট ও ১৭ রান করে শাদাবের বলে নাঈম শেখ ফিরলে চাপে পরে রংপুর রেঞ্জার্স।

যদিও একপাশে থেকে দলের বিপর্যয়ে দারুণ ব্যাটিং করতে থাকেন গ্রেগরি। কিন্তু ২ ছক্কা ও ৫ চারে ৩২ বলের মোকাবেলায় ৪৬ রান করে তিনিও বিদায় নেন। এরপর আল-আমীনের ২৪ বলে ৩৫ রান এবং জহুরুলের বলে রানের উপর ভর করে নির্ধারিত ওভার শেষে ৯ উইকেট হারিয়ে ১৪৮ রান তুলতে সক্ষম হয় রংপুর রেঞ্জার্স।

ঢাকার হয়ে বল হাতে থিসারা পেরেরা নেন ৩ উইকেট। এছাড়া সাদাব খান ২ এবং মাশরাফি ও মেহেদী নেন ১টি করে উইকেট।

Loading Facebook Comments ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *