নীলফামারীর ডাঃ সুজনের রোগীকে বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা দেওয়ার ঘোষনা

নীলফামারীর ডাঃ সুজনের রোগীকে বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা দেওয়ার ঘোষনা

সত্যেন্দ্র নাথ রায় ,ডোমার(নীলফামারী) প্রতিনিধি: নোভেল করোনা ভাইরাসের আতঙ্কে অনেক চিকিৎসক নিজেকে গুটিয়ে রেখেছেন। কিন্তু সারা বিশ্বের এ সংকট সময়ে সকল রোগীকে বিনামূলে নিজের সাধ্যমত চিকিৎসা দেওয়ার সামাজিক যোগাযোগ ফেসবুকে ঘোষনা দিয়েছেন এম এ সুজন নামের উদিয়মান এক তরুণ চিকিৎসক। তার এ ঘোষনায় প্রশংসা ও শুভকামনা জানিয়েন ফেসবুক বন্ধুরা। তিনি নীলফামারী আধুনিক সদর হাসপাতলের মেডিকেল অফিসার হিসেবে কর্মরত। তার বাড়ী জেলার ডোমার উপজেলার বোড়াগাড়ী ইউনিয়নের উত্তরপাড়া এলাকায়। সুজন ওই এলাকার সাবেক প্রধান শিক্ষক আব্দুল মালেকের ছেলে। ডা. সুজনের ফেসবুকের পোষ্টটি হুবহু তুলে ধরা হলো…
প্রিয় ডোমারবাসী বর্তমান করোনা পরিস্থিতির জন্য বাংলাদেশ সহ গোটা বিশ্বের বেহাল অবস্থা…আপনাদের কারো যদি কখনো কোন প্রয়োজন হয় ডাক্তার দেখানোর দয়া করে আমাকে জানাবেন…প্রতিদিন সন্ধ্যা থেকে রাত ৯ টা পর্যন্ত সকল প্রকার সেবা দিতে আমি প্রস্তুত (আমার সাধ্যের মধ্যে)…কোন প্রকার ভিজিট দিতে হবে না…আপনারা আতঙ্কিত হবেন না…আপনাদের জন্য আমরা হাসপাতালে.. আমাদের জন্য আপনারা ঘরে থাকুন..।
ডা. সুজনের ওই পোষ্টে ফেসবুক বন্ধুরা তাকে ধন্যবাদ ও সাধুবাদ জানায়। শাজ সোহেল নামের এক পুলিশ সদস্য মন্তব্য করে, ধন্যবাদ দোস্ত। সবসময় গরিব ও অসহায় মানুষের সেবা করিস। জীবনে অনেক সুনাম অর্জন কর এই দোয়া করি।
সিরাজুল ইসলাম নামের একজন লিখেন, তোমার প্রশংসা করে ছোট করবো না। বাংলাদেশের প্রায় সকল ডাক্তার যেখানে মানবতাকে পাশ কাটিয়ে ঘরে বসে আছে, সেখানে তোমার এ উদ্যোগ সত্যিই মহান। আল্লাহ তোমাকে হেফাজত করুন এই দোয়া মনে প্রানে করি (আমিন)।
ফয়সাল খান নামের আরেকজন লিখেন, আলহামদুলিল্লাহ…পথভ্রষ্ট এ ক্রান্তিলগ্নে এই মহান প্রশংসনীয় পদক্ষেপ আল্লাহ কবুল করুক..আমিন..।
এ বিষয়ে ডা. এম এ সুজন জানান, বিভিন্ন টিভি ও পত্রিকার খবরে জানতে পারি, করোনা ভাইরাসের প্রভাবে অনেক রোগী চিকিৎসা পাচ্ছে না। এতে খুব কষ্ট পাই। আর সিন্ধান্ত নেই সরকারী দায়িত্বের পর, বাকি সময়টুকু গরিব রোগীদের নিজের সাধ্যমতো বিনামূল্যে চিকিৎসা দেবো। ডা. সুজন আরো জানান, মানুষকে সেবা দেবার শপথ নিয়েই চিকিৎসা পেশায় এসেছি। সারাজীবন মানুষকে চিকিৎসা সেবা দিয়ে যাবো।

Loading Facebook Comments ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *