পলাশবাড়ীতে “চাম্পা কলা” চাষীদের মাথায় হাত

পলাশবাড়ীতে "চাম্পা কলা" চাষীদের মাথায় হাত

ছাদেকুল ইসলাম রুবেল,গাইবান্ধা ঃ গাইবান্ধা জেলার পলাশবাড়ী কলা হাট। স্থানীয় উৎপাদন ও দুর-দুরান্তর হতেও আগমন ঘটে বিভিন্ন প্রজাতির কলা এ হাটে। এর মধ্য উৎপাদন ও আমদানির দিকদিয়ে চাম্পা কলার স্থান হচ্ছে এ হাটে দ্বিতীয়। এ হাটকে ঘিরে অনেকই জীবিকানির্বাহ করে। স্থানীয়ভাবে ও দেশের বিভিন্ন প্রান্তথেকে কলা ব্যবসায়ীর আগমন এ হাটে । সহজে বাজার পাওয়ার ফলে নিয়মিত সাগরকলা চাষ করে এখানকার কৃষক অনেকটা অর্থনৈতিকভাবে অগ্রসর। এ পাশাপাশি অধিক লাভের আসায় ও সারাদেশব্যপী চাম্পা কলার ব্যাপক চাহিদা থাকায় চাম্পা কলা চাষ করে এখন বিপাকে পরেছে কৃষকেরা। অযত্নে অবহেলায় একসময় বাড়ীর আনাচে কানাচে বেড়ে উঠতো তা আজ বানিজ্যিকভাবে জমিতে চাষ করে (চাম্পা কলা) কৃষকেরা অনেকটা ক্ষতির সম্মুখীনে।
কৃষকের মতামত অনুযায়ী দুই বছরে মোট তিনবার কলা তোলা যায়, কলা কাটার পর গাছ হতে আগাম চারা একটি রেখে বাকিগুলো কেটে দেওয়া হয়। এভাবেই দুই বছরে মোট তিনবার কলা ফলন দেয়। একটি চারা বড় করে নিয়ে সময়টা এগিয়ে নেয় কলা চাষীগন। যদিও এ ধারণা সাগর কলা চাষের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য। ফলাফল একই মনে করে কৃষক জমিতে চাম্পা কলা দুই বছরে তিনবার ফল পাওয়ার আসায় চাষ করছে। কিন্তু দ্বিতীয় ধাপ চাষের ফলনে ঠিক আগে বাদামি/হলুদ বর্ণ ধারণ করে চাম্পা কলাগাছ মারা যাচ্ছে। পাতা পুড়ে যাওয়া সমস্ত গাছটি হলুদ বর্ণ ধারণ করে মরে যায়। আক্রান্ত গাছের গোড়া কেটে দিয়ে লক্ষ করলে দেখা যায় এক প্রকার কালো বর্ণের ছাপ। এটি ছত্রাকজনিত রোগ বলে জানা যায়। উপজেলা কৃষি কর্মকর্তার নির্দেশনা মোতাবেক ঔষধ ও পরিচর্যায় তেমন কোন ফল পাচ্ছেনা চাম্পা কলা চাষিগন। প্রায় বছরে একবার ফলনের এ ফসল জমি থেকে তোলার ঠিক আগমূহুর্তে (দ্বিতীয় ধাপে) এমন ছত্রাকজনীত মরকে স্বীকার হচ্ছে এ ফসলটি।
অর্থনৈতিকভাবে এমন ক্ষতি কৃষকের কিভাবে মোকাবেলা করবে তা ভাবনার বিষয়। আক্রান্ত সমস্ত গাছটি উপরে ফেলে দেওয়ার পরও অন্যগাছগুলোও এ ছত্রাকের কবলে পড়ছে। তবে জমিতে প্রথম যখন এ কলা চাষ করা হয় এ সমস্যাদি থাকে না একবার কলা বিক্রির পর দ্বিতীয় ধাপের গোরা হতে উঠে আসা এ কলা গাছের চারা উপযুক্ত হওয়ার পর এ ছত্রাকের স্বীকার হচ্ছে। এ রোগটি পানামা রোগ নামে পরিচিত। জমির পাশাপাশি সাগর কলা জমিতে এ পানামা রোগের কোনো প্রভাব পরছেনা তা সরজমিনে দেখা যায়।
ধিরে ধিরে কৃষক ফসলবিহীন কলাগাছগুলো কেটে বাগান ফাকা করছে এবং আশু সমস্যার সমাধানের নিদৃষ্ট দিক নির্দেশনার অপেক্ষায় পলাশবাড়ী এলাকার চাম্পা কলা চাষিগন । আরে আপনার বন্ধুরা তো আপনার কাছে কিছু চায় সেই কারনেই তো বন্ধুত্ব করেছেন।

Loading Facebook Comments ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *