পলাশবাড়ীতে বিভিন্ন স্থান হতে বালু উত্তোলন চলছে মহাউৎসব

ছাদেকুল ইসলাম রুবেল,গাইবান্ধা ঃ গাইবান্ধা জেলার পলাশবাড়ী উপজেলার বিভিন্ন স্থানে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন বন্ধে প্রশাসনের অভিযান পরিচালনার মাস পেরিয়ে মাস না আসতেই আবারো চলছে বালু উত্তোলনের মহাযোগ্য মহাউৎসব।
উপজেলার হোসেনপুর ও কিশোরগাড়ী ইউনিয়নের উপর দিয়ে বয়ে যাওয়া করতোয়া নদীসহ এ ইউনিয়ন দুটির বিভিন্ন স্থানে চলছে বালু উত্তোলনের মহাউৎসব। সরেজমিনে গিয়ে জানা যায়,সংশ্লিষ্ট কর্তা ব্যাক্তিদের ম্যানেজ করে চলছে বালু উত্তোলনের মহাউৎসব।
স্থানীয়রা জানান,এরকম প্রতিনিয়ত সংবাদ কর্মীরা আসেন ছবি তুলেন ফায়দা লুটে চলে যান। আবারো বালু উত্তোলন অব্যহত থাকে। বালু উত্তোলনকারীরা প্রভাবশালী তাই তাদের বিরুদ্ধে প্রশাসনের নিকট অভিযোগ করলে মানসিক ও শাররিকভাবে নির্যাতনের স্বীকার হতে হয় প্রতিবাদিদের।
জানা যায়, মাস দুয়েক আগে হোসেনপুরস্থ আমবাগানের বন্যা নিয়ন্ত্রন বাধের উপর দিয়ে ট্রাক্টরদ্বারা বালু মাটি আনা নেওয়ার করায় কয়েকটি ট্রাক্টর জব্দ করে বিকল করে দেয় উপজেলা প্রশাসন। এ অভিযানের মাস ক্ষানেক পরে আবারো সেই চক্রে প্রধান কার্তিক বাবু নামক এক বালু খেকো করতোয়া নদী হতে বালু উত্তোলন করে পাহাড়সম উচু করে প্রতিনিয়ত বন্যানিয়ন্ত্রন বাধের উপর দিয়ে চলাচল করছে। কেউ তার একাজে বাধা দিলে সে জানায় সকলকে ম্যানেজ করে বালু উত্তোলন করা হচ্ছে।
এদিকে কিশোরগাড়ী ইউনিয়নের ঋষি ঘাট হতে একই কায়দায় করতোয়া নদী হতে বালু উত্তোলন করে নদী হতে ২ শত গজ দুরে নিয়ে বিক্রি করছে বালু উত্তোলনকারী চক্র,এছাড়া ইউনিয়ন দুটির বিভিন্নস্থানে বালু উত্তোলন অব্যহত রয়েছে।
করতোয়া নদীর বন্যা নিয়ন্ত্রন বাধ রক্ষায় অবৈধভাবে বালু উত্তোলন বন্ধ ও বালু উত্তোলনকারীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহনে সংশ্লিষ্ট সকলে হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন স্থানীয়রা।

Loading Facebook Comments ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *