কাতারে পাসপোর্ট ছাড়া প্রধানমন্ত্রীকে আনাতে যাওয়া পাইলট

পাসপোর্ট ছাড়া প্রধানমন্ত্রীকে আনাতে যাওয়া পাইলট কাতারে ফজল মাহমুদ

বিদেশ সফররত প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে আনতে বুধবার দিবাগত রাতে শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে বোয়িং-৭৮৭ মডেলের একটি ড্রিমলাইনার নিয়ে কাতারের দোহা আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে যান ফজল মাহমুদ নামের এক পাইলট। কিন্তু ভুলে পাসপোর্ট না নেওয়ায় কাতারের ইমিগ্রেশনে গিয়ে বিপাকে পড়েন তিনি।

বিষয়টি নিশ্চিত করে বেসামরিক বিমান ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের সচিব মহিবুল হক জানান, তার পাসপোর্ট অন্য একটি বিমানে কাতারে পাঠানো হয়েছে। পাসপোর্ট ছাড়া ওই পাইলট কীভাবে হযরত শাহজালাল বিমানবন্দর পার হয়ে সেখানে গেলেন, তা অত্যন্ত গুরুত্ব দিয়ে তদন্ত করে দেখা হবে বলে জানান তিনি।

তিনি আরও জানান, বুধবার রাতের ওই ঘটনায় কাতারে ওই পাইলটকে আটক করা হয়নি। তাকে একটি হোটেলে থাকার ব্যবস্থা করা হয়েছিল। পরে রিজেন্ট এয়ারওয়েজের ফ্লাইটে তার পাসপোর্ট পাঠানো হয়েছে। প্রধানমন্ত্রীকে ওই পাইলটই দেশে ফিরিয়ে আনবেন।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তিন দেশে সরকারি সফরের অংশ হিসেবে বর্তমানে ফিনল্যান্ডে অবস্থান করছেন। শনিবার তার দেশে ফেরার কথা রয়েছে।

জানা গেছে, ফিনল্যান্ড থেকে অপর একটি ফ্লাইটে দোহা আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছাবেন প্রধানমন্ত্রী। সেখান থেকে তাকে আনতে বুধবার রাতে ঢাকার শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে বিমানের বোয়িং ৭৮৭ মডেলের ড্রিমলাইনার উড়োজাহাজটি কাতারের উদ্দেশে ঢাকা ত্যাগ করেন পাইলট ক্যাপ্টেন ফজল মাহমুদ। তিনি পাসপোর্ট ছাড়াই কাতার যান, যেটি ধরা পড়ে সে দেশের ইমিগ্রেশনে।

আন্তর্জাতিক নিয়ম অনুযায়ী, পাসপোর্ট ছাড়া কারও দেশত্যাগ কিংবা অন্যদেশে প্রবেশের সুযোগ নেই। এদিকে পাসপোর্ট ছাড়া একজন পাইলট কীভাবে নিজ দেশের ইমিগ্রেশন পার হয়ে বিদেশ গেলেন এটি নিয়ে তোলপাড় চলছে।

Loading Facebook Comments ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *