পীরগঞ্জে জেলা পরিষদের গাছ আত্মসাত!তদন্ত অনুষ্ঠিত

পীরগঞ্জে দাখিল মাদ্রাসার সুপার ও সভাপতি বিরুদ্ধে অনিয়ম ও দূর্ণীতির অভিযোগ (পর্ব-১)

পীরগঞ্জ (রংপুর) প্রতিনিধি ঃ
পীরগঞ্জে রংপুর জেলা পরিষদের ১ টি সড়কের গাছ টেন্ডারে বিক্রি করা হলেও ৪টি সড়কের বেশকিছু মুল্যবান পুরাতন গাছ একটি মহল কর্তন ও আত্মসাত করেছে। বৃহষ্পতিবার গাছ কর্তনের ব্যাপারে পীরগঞ্জ সদরের জেলা পরিষদ ডাকবাংলোয় তদন্ত হয়েছে।
জানা গেছে, রংপুর জেলা পরিষদ থেকে পীরগঞ্জ-খালাশপীর সড়কের ১৫টি পুরাতন গাছ ৯০ হাজার টাকা টেন্ডারের মাধ্যমে ঠিকাদার হারুন অর রশিদ ক্রয়ের পর গাছগুলো কর্তন শুরু করে। এরই মধ্যে উপজেলার উল্লাগাড়ী গ্রামের কাঠ ব্যবসায়ী সড়কটির বেশকিছু গাছ কেটে নেয়। এছাড়াও বড়দরগা-ভেন্ডাবাড়ী সড়কের চাতালবাজারে ৫টি লম্বু ও ভেন্ডাবাড়ী ছ’মিলের কাছে ৬টি আকাশমনি; গুর্জিপাড়া-আনন্দনগর সড়কের ত্রিমোহনী ব্রিজের কাছে ৪টি রেইনট্রি; চতরা-খালাশপীর সড়কে ৩টি রেইনট্রি গাছ কর্তন করা হয়। এ ঘটনায় জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ৩ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করেন। ঠিকাদার হারুন অর রশিদ বলেন, আমি কার্যাদেশ পাওয়ার পর ১৫টি গাছ কর্তন করছি। কাঠ ব্যবসায়ী জয়নালের সাথে পরিচয় নেই, গাছ বিক্রিও করিনি। তদন্ত কমিটির প্রধান জেলা পরিষদের সচিব মির্জা হাসান বেগ বলেন, জেলা পরিষদের সার্ভেয়ার ওয়াদুদ আলী কর্তব্যে অবহেলা ও গাফিলতি করায় পীরগঞ্জ-খালাশপীর সড়কে অতিরিক্ত গাছ কর্তন হয়েছে। আজ (গতকাল) কাঠ ব্যবসায়ী জয়নাল আবেদীন তদন্ত কমিটির কাছে অতিরিক্ত গাছ কর্তনের কথা স্বীকার করেছে। তিনি আরও বলেন, আমরা শুধু ১টি সড়কের গাছের তদন্ত করতে এসেছি। জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ছাফিয়া খানম বলেন, অতিরিক্ত গাছ কর্তক করার অভিযোগ পেয়ে তদন্ত কমিটি করেছি। প্রতিবেদন পাওয়ার পরই আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Loading Facebook Comments ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *