পীরগঞ্জে বড়দরগাহ শাহ্ ইসমাঈল গাজী (রঃ) ওয়াক্ফ ষ্ট্রেটের জমিকে কেন্দ্র করে দোকানঘর ভাংচুর

পীরগঞ্জে বড়দরগাহ শাহ্ ইসমাঈল গাজী (রঃ) ওয়াক্ফ ষ্ট্রেটের জমিকে কেন্দ্র করে দোকানঘর ভাংচুর

পীরগঞ্জ (রংপুর) প্রতিনিধি ঃ রংপুরের পীরগঞ্জ উপজেলার বড়দরগাহ শাহ্ ইসমাঈল গাজী (রঃ) ওয়াক্ফ ষ্টেটের জমিকে কেন্দ্র করে প্রতিপক্ষের লোকজন কর্তক ১৫-২০টি দোকানঘর ভাংচুর করার ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে দুই গ্রুপ পাল্টাপাল্টি অভিযোগ দায়ের করেছে। তথ্যে জানা গেছে, বিগত ১৯৮২ সনে উপজেলার বড়দরগাহ শাহ ইসমাইল গাজী (রহঃ) ওয়াফফ ষ্টেটের জমি থেকে তৎকালিন মোতয়াল্লী শাহ মেছের আলী রেজিষ্ট্রি দলীল মুলে বড়দরগাহ শাহ ইসমাইল গাজী (রহঃ) ফাজিল মাদ্রাসার অনুকুলে ৫০ শতক জমি রেজিষ্ট্রি করে দেন। যার দলিল নং-৭০৮৪। জমিটিতে দীর্ঘ দিন ধরে কাঁচা মালের হাট বসে আসছে এবং সেখানে কয়েকটি অস্থায়ী দোকান ঘরও নির্মিত হয়েছে। এদিকে গত কয়েক মাস পুর্বে উক্ত জমি নিয়ে মাদ্রাসা কর্তৃপক্ষ ও মাজার কর্তৃপক্ষের মধ্যে বিরোধের সৃষ্টি হয় এবং মাজার কর্তৃপক্ষ জমিটি তাদের দাবী করে চলতি সনের ৫ ফেব্রয়ারী রংপুরের সিনিয়র সহকারী জজ আদালতে একটা মামলা করে । যার নং-১৪/২০১৯ । মামলাটি বিজ্ঞ আদালতে বিচারাধীন রয়েছে। এ দিকে গত ২০ অক্টোবর মাদ্রাসার অধ্যক্ষ আব্দুল গফুর সরকার, অফিস সহকারী তুহিন শ্রমিক নেতা টেলিনসহ শিক্ষার্থীরা মাদ্রাসার অধ্যক্ষর নির্দেশে বেশ কয়েকটি দোকান ভাংচুর করে শিক্ষার্থীরা। এতে কাঁচামাল ব্যবসায়ী শাহ আলম, মেরাজুল. তারাজুল, মোমিন, রেদওয়ান, দীল আলম, মফিজুল ইসলাম, লেবু, লাল মিয়া, সাইদুল ফুলু সহ অনেকে দোকান ভাংচুর করে। এ ঘটনায় মাদ্রাসার অধ্যক্ষ আব্দুল গফুর মিয় ওই দিনেই উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবরে অভিযোগ দিয়েছে এদিকে ক্ষতিগ্রস্থরা থানায় অভিযোগ দিয়েছে। উক্ত ঘটনাকে কেন্দ্র করে এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে যেকোন মুহুত্বে বড়ধরনের রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের আশংকা করছে এলাকাবাসী। অপরদিকে গত মঙ্গলবার দুপুরে পীরগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ ইনচার্জ সরেস চন্দ্র ঘটনাস্থল পরিদর্শন করছেন এবং দু’পক্ষকে শান্ত থেকে প্রয়োজনীয় কাগজ পত্র সহ থানায় আহবান করা হয়েছে। তবে খুব শীঘ্রই বিষয়টি ফয়সালা করা হবে।

Loading Facebook Comments ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *