ফিজে বধ চিটাগাং ভাইকিংস

ডেস্কঃ অসাধারণ একটি ম্যাচ দেখল চট্টগ্রাম। আবারও শেষ ওভারে ভেলকি দেখালেন কাটার মাস্টার মুস্তাফিজুর রহমান। গ্যালারি কানায় কানায় ভরে রাখা দর্শকদের পয়সা উসুল। কিন্তু আনন্দ পুরোপুরি উপভোগ করতে পারলেন না চাঁটগাবাসী। কারণ গতকাল রংপুর রাইডার্সের কাছে হারের পর আজ রাজশাহী কিংসের কাছে হেরে গেল মুশফিকুর রহিমের দল। শ্বাসরুদ্ধকর ম্যাচে স্বাগতিক চিটাগং ভাইকিংসকে ৭ রানে হারিয়ে দিয়েছে মেহেদী হাসান মিরাজের দল।
জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে ১৯৯ রানের টার্গেটে যেমন শুরু হওয়া দরকার মোহাম্মদ শেহজাদ তেমন ঝড়ো শুরু এনে দেন। কামরুল ইসলাম রাব্বির করা প্রথম ওভারেই হাঁকান তিন ছক্কা। অপর ওপেনার ক্যামরন ডেলপোর্ট ৭ রান করে আউট হলে ভাঙে ৩১ রানের উদ্বোধনী জুটি। ৩ চার ৫ ছক্কায় ২২ বলে ৪৯ করা শেহজাদের তাণ্ডব থামান কিংস অধিনায়ক মিরাজ। এতে অবশ্য রানের গতি কমতে দেননি ভাইকিংস অধিনায়ক মুশফিক আর ইয়াসির।
৩৮ বলে ৭ চার ২ ছক্কায় ৫৮ রান করা ইয়াসিরকে আরাফাত সানি বোল্ড করে দিলে ব্যাটিং বিপর্যযে পড়ে চিটাগং। দ্রুত ফিরে যান অধিনায়ক মুশফিক (২২) এবং মোসাদ্দেক হোসেন (১)। জয়ের জন্য শেষ চার ওভারে দরকার ছিল ৪৪ রান। এমন মুহূর্তে জ্বলে ওঠেন বেশ কয়েকটি ক্যাচ ফেলা সিকান্দার রাজা। ডয়েশ্চটের ১৭তম ওভারে ২ চার এক ছক্কায় নেন ১৭ রান। কিন্তু পরের ওভারে পার্থক্য গড়ে দেন মুস্তাফিজ। জয় থেকে ১৩ রান দূরে থাকা অবস্থায় কামরুল ইসলাম রাব্বির বলে ক্যাচ দেন নাজিবুল্লাহ জারদান (১১)।
জয়ের জন্য শেষ ওভারে ভাইকিংসের দরকার ছিল ১৩ রান। বোলার সেই মুস্তাফিজ। প্রথম বলেই কাটার মাস্টার বোল্ড করে দেন ১৫ বলে ২ চার ২ ছক্কায় ২৯ করা সিকান্দার রাজাকে। আশার প্রদীপ নিভে যায় চিটাগংয়ের। পঞ্চম বলে আবারও কাটার ভেলকি। বোল্ড হয়ে যান রবিউল হক (৩)। নির্ধারিত ২০ ওভারে ৮ উইকেটে ২৯১ রানে থামে চিটগং ভাইকিংস। ৭ রানের দারুণ জয় তুলে নেয় রাজশাহী কিংস।
এর আগে শনিবারের দ্বিতীয় ম্যাচে টস হেরে ব্যাটিংয়ে নেমে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৫ উইকেটে ১৯৮ রান তুলে রাজশাহী কিংস। দুইবার ক্যাচ দিয়ে বেঁচে যাওয়া সৌম্য সরকার এক পর্যায়ে হাত খুলতে শুরু করেন। অবশেষে ২০ বলে ৫ বাউন্ডারিতে ২৬ রান করে খালেদ আহমেদের শিকার হন ফর্মহীনতায় ভোগা এই হার্ডহিটার। ভাঙে ৫০ রানের ওপেনিং জুটি। অপর ওপেনার জনসন চার্লস ৪০ বলে তুলে নেন ফিফটি। অতঃপর ৪৩ বলে ৫ চার ২ ছক্কায় ৫৫ রানে আবু জায়েদের বলে এলবিডাব্লিউ হয়ে যান।
আজ হুট করে তিন নম্বরে নামা লরি ইভান্স খেলেন ২৯ বলে ৩৬ রানের ইনিংস। টেন ডয়েশ্চট ১২ বলে ২৭ রানের ক্যামিও উপহার দেন; যাতে ছিল ৪টি ছক্কা। ১৯তম ওভারের শেষ বলে রান-আউট হয়ে যান তিনি। ক্যামেরন ডেলপোর্টের করা শেষ ওভারে ক্রিশ্চিয়ান জংকার এবং ফজলে মাহমুদের ব্যাটে দুইশ ছাড়িয়ে যাওয়ার সুযোগ থাকলেও সেটা শেষ পর্য্ন্ত হয়নি। শেষ বলে ক্যাচ তুলে দেন ১৭ বলে ৩৭ করা জংকার। নির্ধারিত ২০ ওভারে কিংসদের সংগ্রহ দাঁড়ায় ৫ উইকেটে ১৯৮ রান।
জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে দিনের প্রথম ম্যাচে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের খুলনা টাইটান্সকে ৫৮ রানের বড় ব্যবধানে হারিয়েছে অলক কাপালির সিলেট সিক্সার্স। এতে পয়েন্ট তালিকার পাঁচে চলে গেছে সিলেট। ছয়ে নেমে গেছে রাজশাহী কিংস।

Loading Facebook Comments ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *