ফুলছড়িতে অর্থের অভাবে বিনা চিকিৎসায় ধুকে ধুকে মরতে বসেছে বীর মুক্তিযোদ্ধা

ফুলছড়িতে অর্থের অভাবে বিনা চিকিৎসায় ধুকে ধুকে মরতে বসেছে বীর মুক্তিযোদ্ধা

ছাদেকুল ইসলাম রুবেল,গাইবান্ধা প্রতিনিধিঃ এই দিন দেখার জন্য কি জীবন বাজি রেখে দেশ স্বাধীন করেছিলেন বীর মুক্তিযোদ্ধা চাঁন মিয়া।গাইবান্ধা জেলার ফুলছড়ি উপজেলার কঞ্চিপাড়া ইউনিয়নের দক্ষিণ কঞ্চিপাড়া গ্রামের মৃত ইসমাইল হোসেনের ছেলে বীর মুক্তিযোদ্ধা চাঁন মিয়া। অর্থের অভাবে বিনা চিকিৎসায় ধুকে ধুকে মরতে বসেছে দেখার কেহ নাই ।

১৯৭১ সনে মহান মুক্তিযুদ্ধের বৎসরে সে সময় চাঁন মিয়া ছিল টকবগে যুবক অস্ত্র হাতে দেশের জন্য যুদ্ধ করেছে।দেশ মাতৃকার ডাকে চাঁন মিয়া সবকিছু ফেলে রেখে চলে গেলেন মহান যুক্তিযুদ্ধে ঝাপিয়ে পরেছিল পাক হানাদার বাহিনীর বিরুদ্ধে । ট্রেনিং নিলেন ভারতের কাকরীপাড়া ইয়থ ক্যাম্পে।পরে সে তুরায় উচ্চতর প্রশিক্ষণ গ্রহন করেন। সে সময় আলতাব সুবেদার, এনামুল হক, করম আলীর কাছে অস্ত্র প্রশিক্ষণ গ্রহন করেন। এবার সম্মুখ সমরের পালা। মুক্তিযোদ্ধা চাঁন মিয়া চলে এলেন দেশমাতৃকাকে মুক্তি করার জন্য। নেমে গেলেন যুদ্ধে। ১১নং সেক্টরের কম্পানী কমান্ডার মাহবুব এলাহী রঞ্জু ও মুবিনুল হক জুবেল মিয়ার নেতৃত্বে বিভিন্ন জায়গায় পাক হানাদার বাহিনী ও এ দেশীয় রাজাকারদের প্রতিরোধ যুদ্ধে অংশ গ্রহন করেন। রনাঙ্গনে যুদ্ধের সময় ফুলছড়ি উপজেলার বালাসী ঘাটে পাক হানাদারদের সাথে এক সম্মুখ যুদ্ধে সে অংশ গ্রহন করেন।আজ দেশ কে শত্রুমুক্ত করতে পারলেও স্বাধীনতার সেই আখাংঙ্কা আজ পূরুন হয়নি। বাঙ্গালী আজও তার নাগরিক অধিকার হতে বঞ্চিত হয়েই রয়েছে। যার প্রমাণ হলো বর্তমান সময়ে একজন বীর মুক্তিযোদ্ধার চিকিৎসা না পাওয়া।মুক্তিযোদ্ধা চাঁন মিয়া তার সুচিকিৎসার জন্য প্রধান মন্ত্রী, স্থানীয় সাংসদ ও ডেপুটি স্পীকারসহ জেলার সংশ্লিষ্ট সকলের সহযোগিতা কামনা করেছেন।

Loading Facebook Comments ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *