ফুলছড়িতে জাপা নেতা আটক, জনতার বিক্ষোভের পর মুক্তি

ফুলছড়িতে জাপা নেতা আটক, জনতার বিক্ষোভের পর মুক্তি

গাইবান্ধা প্রতিনিধি ঃ গাইবান্ধার ফুলছড়ি উপজেলায় ফেসবুকে বিরুপ মন্তব্য করায় উপজেলা জাপার সাধারন সম্পাদককে আটক করে। ১৪ আগষ্ট বুধবার তাকে আটক করলে নেতা কর্মিরা বিক্ষোভ মিছিল ও থানা ভবন ঘেরাও করলে পরিস্থিতি শান্ত রাখতে তাকে ছেড়ে দেয়।

জানা যায়,কালিরবাজার গরুর হাট ইজারা ছাড়াই অবৈধভাবে টোল আদায় করার বিষয়ে ফেসবুকে মন্তব্য করায় অভিযোগে উপজেলার জাপা’র সাধারণ সম্পাদক আল আমিন আহম্মেদ আটক।

প্রতিবাদে জাতীয় পার্টিসহ বিভিন্ন দলের নেতাকর্মী, এলাকার বিক্ষুব্ধ লোকজন ও উপজেলা সদর কালিরবাজারের ব্যবসায়ীরা বুধবার সকালে আধা বেলা দোকানপাট বন্ধ রেখে বিক্ষোভ মিছিল ও থানা ভবন ঘেরাও করে। এক পর্যায়ে জনতার আন্দোলনের মুখে মুচলেখা নিয়ে গ্রেফতারকৃত আল আমিনকে ছেড়ে দেয় থানা পুলিশ।

উল্লেখ্য গত ৩ আগস্ট স্থানীয় এক সাংবাদিকের সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক থেকে ফুলছড়ি উপজেলার কালিরবাজারের গরুর হাটের প্রচারপত্র পোস্ট করা হয়। বিগত ২/৩ বৎসর থেকে কোন প্রকার ইজারা ছাড়াই একটি পক্ষ গরুর হাটটি দখল করে রেখেছে মর্মে মন্তব্য করে উক্ত প্রচারপত্রটি নিজের ফেসবুকে শেয়ার করেন ফুলছড়ি উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান জি.এম সেলিম পারভেজ।

উপজেলা চেয়ারম্যানের শেয়ার করা পোস্টে বিভিন্ন জন বিভিন্ন রকমের মন্তব্য করেন। সেখানে ফুলছড়ি উপজেলা জাতীয় পার্টির সাধারণ সম্পাদক আল আমিন আহম্মেদ গরুর হাটটি নিয়ে মন্তব্য করে লেখেন, শ্বশুর চাইছিল উপজেলাকে ল্যাট্রিন বানাতে পারে নাই, জামাইয়ের ইচ্ছা হেলিপ্যাড হবে গোয়াল ঘর, আর চামচারা ওদের প্রভুর অর্ডার পালনে মহা ব্যস্ত। আল আমিন আরও মন্তব্য করেন, টাকা চামচা আর টাউটেরা খায়।

ফেসবুকে এমন মন্তব্যের কারণে বাংলাদেশ সুপ্রীম কোর্টের এক বিচারপতির মানহানি হয়েছে উল্লেখ করে গত ১৩ আগষ্ট রাতে ফুলছড়ি থানায় একটি লিখিত এজাহার করেন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের চতুর্থ বর্ষের শিক্ষার্থী ও উপজেলার উদাখালী ইউনিয়নের দক্ষিণ বুড়াইল গ্রামের আব্দুল মজিদের পুত্র আশিকুর রহমান।

এজাহারে তিনি উল্লেখ করেন, ১৩ আগষ্ট সন্ধ্যায় ফেসবুকের মন্তব্য গুলো বিচারপতি কে দেখানোর পর এনিয়ে আলোচনা চলাকালে আসামী আল আমিন আহম্মেদ উপজেলা সদরের অবস্থিত বিচারপতির বাসভবনে গিয়ে হাজির হন।

এসময় বিচারপতি ফেসবুকে মন্তব্য নিয়ে জিজ্ঞাসা করলে আল আমিন আহম্মেদ বিষয়টি নিয়ে ক্ষমা চান এবং বিচারপতির সামনেই আশিকুর রহমানকে দিয়ে লিখে নেওয়া ক্ষমা চাওয়া সংক্রান্ত ফেসবুকে আরও মন্তব্য পোস্ট করেন।

তার এ কমেন্টের পর পরেই আশিকুর রহমান থানায় লিখিত এজাহার করলে পুলিশ আল আমিন আহম্মেদকে গ্রেফতার করে থানায় নিয়ে যায়।

আল আমিন আহম্মেদের আটকের বিষয়টি জানাজানি হলে তার মুক্তির দাবীতে জাতীয় পার্টিসহ বিভিন্ন দলের নেতাকর্মী, এলাকার বিক্ষুব্ধ লোকজন ও উপজেলা সদর কালিরবাজারের ব্যবসায়ীরা বুধবার সকালে আধা বেলা দোকানপাট বন্ধ রেখে বিক্ষোভ মিছিল করে।

এক পর্যায়ে তারা ফুলছড়ি থানার সামনে গিয়ে অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ সমাবেশ করে। এসময় বিক্ষুব্ধ জনতার দাবীর সাথে একমত পোষণ করে বক্তব্য রাখেন ফুলছড়ি উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি জিএম সেলিম পারভেজ।

বিক্ষুব্ধ জনতার দাবীর প্রেক্ষিতে বুধবার দুুপুরে ফুলছড়ি থানা পুলিশ মুচলেখা নিয়ে আটক আল আমিন আহম্মেদকে ছেড়ে দিলে পরিস্থিতি শান্ত হয়।

এ ব্যাপারে ফুলছড়ি থানার ওসি বেলাল হোসেন জানান, ফেসবুকে বিরুপ মন্তব্যের অভিযোগে উপজেলা জাতীয় পার্টির সাধারণ সম্পাদক আল আমিন আহম্মেদকে আটক করা হয়েছিল। পরে মুচলেখা নিয়ে ছেড়ে দেয়া হয়েছে। এ ঘটনায় কোন মামলা হয়নি বলে তিনি জানান।

Loading Facebook Comments ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *