ফুলবাড়ীতে পাওনা টাকা চাইতে গিয়ে প্রতিপক্ষকে হয়রানি করার লক্ষে থানায় মিথ্যা মামলা দায়ের॥

ফুলবাড়ী (দিনাজপুর) প্রতিনিধি
ফুলবাড়ী উপজেলার বেতদীঘি ইউপির শাহাপুর চিন্তামন গ্রামের মামুনুর রশিদ মানিক প্রতিপক্ষের কাছে পাওনা টাকা চাওয়ায় তার বিরুদ্ধে ফুলবাড়ী থানায় তোফাজ্জাল হোসেন সাদ্দাম এর মিথ্যা মামলা দায়ের করেন। ফুলবাড়ী উপজেলার বেতদীঘি ইউপির শাহাপুর চিন্তামন গ্রামের মৃত আবুল হোসেন এর পুত্র মোঃ মামুনুর রশিদ মানিক এর অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, বেতদীঘি ইউপির ফরিদাবাদ গ্রামের মৃত আজগার আলীর পুত্র মোঃ তোফাজ্জাল হোসেন সাদ্দাম (৩২) গত ১ বছর আগে মামুনুর রশিদ মানিক এর নিকট উক্ত ব্যক্তি ২ লক্ষ ৩০ হাজার টাকা ব্যবসা করার কথা বলে ধার নেয়। উক্ত ধারের টাকা চাইতে গেলে উক্ত ব্যক্তি আজ দিব কাল দিব বলে টালবানা করেন। এর মধ্যে মোঃ তোফাজ্জাল হোসেন সাদ্দাম নিকট টাকা চাইলে তার গ্রামের গনমান্য লোকজন এর উপস্থিতিতে উত্তরা ব্যাংক লি: ফুলবাড়ী শাখার চেক নং-ঈঅঞঋ/ই-৬৩৫৩২৭৩ হিসাব নং-১৭৯১। উক্ত চেকের টাকা তুলতে গেলে ব্যাংক ম্যানেজার বলেন, এই হিসাব নম্বর এ পর্যাপ্ত টাকা নেই। উক্ত চেকের টাকার বিষয়ে মোঃ তোফাজ্জাল হোসেন সাদ্দাম কে মোঃ মামুনুর রশিদ মানিক বলেন তোমার চেকে টাকা তুলতে গিয়ে ব্যাংকে দেখা যায় তোমার হিসাব খাতে টাকা নেই। তোফাজ্জাল হোসেন সাদ্দাম অবশেষে ফুলবাড়ীতে গত ২৩/০৬/২০২০ ইং তারিখে ৩ শত টাকার ষ্টাম্পে আবারও ৫৪ হাজার টাকা ধার নেয় এই নিয়ে মোট ২ লক্ষ ৮৪ হাজার টাকা ধার হিসেবে গ্রহণ করেন। টাকা দিতে না পারায় গত ০১/০৭/২০২০ ইং তারিখে পরিশোধের অঙ্গীকারে উক্ত ব্যক্তি তার নিজ ব্যবহৃত একটি রেজি বিহীন লাল রং এর ১০০ সিসি মটোর সাইকেল যাহার ইঞ্জিন নং-৬০০২৭৯২২, চেচিস নং-৭৩৩৮৬৪, মডেল-জকঝ-১০০ সিসি মটর সাইকেলটি মোঃ মামুনুর রশিদ মামুনকে প্রদান করে গত ০১/০৭/২০২০ ইং তারিখে টাকা দেবার অঙ্গীকার করে হ্যান্ডনোটে স্বাক্ষর করেন। যাহার ষ্টাম্প নং-৩৯৭৮১৭০। এ দিকে প্রতারক মোঃ তোফাজ্জাল হোসেন সাদ্দাম মটর সাইকেল ফুলবাড়ী শহরের মনিমালা সিনেমা হলের সামনে গত ২৩/০৬/২০২০ ইং তারিখে মটর সাইকেল ছিনতাই দেখিয়ে ফুলবাড়ী থানায় একটি মিথা মামলা দায়ের করেন। যাহার মামলা নং-১৩, তারিখ-২৮/০৬/২০২০ ইং। গত ২৬/০৬/২০২০ ইং তারিখে তোফাজ্জাল হোসেন সাদ্দাম মিথ্যা মামলা করার পর মামুনুর রশিদ মানিক এর অনুপস্থিতি ফুলবাড়ী থানার পুলিশ তার বাড়ী থেকে ঐ মটর সাইকেলটি তুলে আনেন। ফুলবাড়ী থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ ফখরুল ইসলাম ঘটনাটি সঠিক তদন্ত না করে মোঃ তোফাজ্জাল হোসেন সাদ্দাম এর মামলাটি গ্রহণ করেন। এই মামলার আসামী মোঃ মামুনুর রশিদ মানিক সাংবাদিককে বলেন, ফুলবাড়ী থানার পুলিশ ঘটনাটি সুষ্ট তদন্ত না করে আমার বিরুদ্ধে এই মিথ্যা মামলাটি গ্রহণ করেন। যা আমাকে হয়রানি করার জন্য। এ ব্যাপারে মামুনুর রশিদ মানিক সুষ্ট তদন্ত সাপেক্ষে ন্যায় বিচারের আশায় পুলিশ প্রশাসনের উদ্ধতন কর্র্তৃপক্ষের আসু-হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

Loading Facebook Comments ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *