রাজারহাটে নবাগত ওসি’র যোগদানের পর কমেছে অপরাধ বেড়েছে মানুষের আস্থা

এ.এস.লিমন,রাজারহাট (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধিঃ কুড়িগ্রামের রাজারহাটে নবাগত ওসি রাজু সরকার যোগদানের ২৫ দিনের মধ্যে উপজেলায় কমেছে চুরি, ছিনতাই,জুয়া মাদক,সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদসহ অপরাধ মুলক কর্মকান্ড। সেই সাথে বেড়েছে পুলিশের প্রতি জনগণের আস্থা।
বর্তমান রাজারহাট থানার অফিসার ইনচার্জ রাজু সরকার রাজারহাট উপজেলায় যোগদানের পর থেকে উপজেলাবাসী হয়রানিমুক্ত সেবা পাচ্ছেন। কোন প্রকার হয়রানি ছাড়াই নাগরিক সেবা পাচ্ছেন উপজেলার ৭টি ইউনিয়নের মানুষজন।
জানা যায়,কুড়িগ্রামের রাজারহাট উপজেলায় ১০ মে ২০২০ সালের রাজারহাট থানা অফিসার ইনচার্জ হিসেবে যোগদান করেন রাজু সরকার। যোগদানের পর থেকে তিনি চুরি জুয়া,মাদক, সন্ত্রাস জঙ্গিবাদসহ পুলিশের গ্রেফতারি ও ঘুষ বাণিজ্যির বিরুদ্ধে জিহাদ ঘোষনা  করেন। তার নেতৃত্বে  উপজেলার ৭ ইউনিয়নে ৭ দিনের মধ্যে জুয়ারী ও মাদক ব্যবসায়কে গ্রেপ্তারের জন্য রাজারহাট থানার সকল কর্মকর্তাদের নির্দেশনা দিয়েছেন। এছাড়া তার কাছ থেকে সব থেকে বেশী সুবিধা পাচ্ছেন অসহায় নির্যাতিত মানুষগুলো। তাদের জন্য সব সময় খোলা থাকে অফিসার ইনচার্জ রাজু সরকারের অফিস কক্ষের দরজা।  নাম প্রকাশ না করার শর্তে এক নারী বলেন, আমি খুব গরীব মানুষ বিপদে পড়ে ওসি কাছে গিয়েছিলাম তিনি তার অফিস কক্ষে ডেকে আমাকে বসতে বলেন এবং চা ও মিষ্টি খাওয়ান এরপর তিনি মনোযোগ সহকারে আমার অভিযোগ শুনেছেন এবং আমার সমস্যা সমাধান করে  দিয়েছেন। তিনি আবেগ আপ্লুত হয়ে বলেন বর্তমানে যে ওসি স্যার আছেন তিনি আমার মত গরীব একজন মানুষকে অতিথী আপ্যায়ন করেছেন। আমার মত গরীব মানুষের এর চেয়ে বড় পাওয়ার আর কি আছে। আসলে তার কাছে মানুষজন গেলে মানুষ বুঝতে পারবেন যে তিনি কত ভালো মানুষ!
রাজারহাট সদর (২ওয়ার্ড) ইউপি সদস্য মো.শহীদুল ইসলাম (বাবু) বলেন, বর্তমান রাজারহাট থানায় পুলিশ ক্লিয়ারেন্স, জিডি, পুলিশ ভেরিফিকেশন ও মামলা করতে কোন টাকা লাগে না। এ ধারা অব্যাহত থাকলে পুলিশের প্রতি মানুষের আরও আস্থা বাড়বে। এছাড়া রাজারহাট উপজেলায় আগে মানবাধিকার লঙ্ঘন হয়েছিল। তিনি যোগদানের পর থেকে সেই সমস্যা  দুর হয়েছে। সৎ ও যোগ্য এই পুলিশ কর্মকর্তা শুধু উপজেলায় নয় গ্রামের মানুষের কাছে এই অল্প দিনের মধ্যে তিনি প্রিয় ব্যাক্তিত্ব হয়ে গেছেন।
রাজারহাট থানার অফিসার ইনচার্জ রাজু সরকার বলেন, রাজারহাট থানায় সবচেয়ে বেশী সুবিধা পাবেন উপজেলার গরীব মানুষজন।  রাজারহাট থানায় আমার প্রথম কাজ হবে সাধারণ জনগণের আস্থার প্রতীক হিসেবে নিজেকে উপস্থাপন করা। পাশাপাশি আইনশৃঙ্খলার উন্নতি ঘটিয়ে রাজারহাট উপজেলাকে একটি আদর্শ, নিরাপদ থানা হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করা। তিনি আইনশৃঙ্খলা সমুন্নত রাখতে উপজেলার সর্বস্তরের জনগণের সার্বিক সহযোগিতা কামনা করেছেন।

রাজারহাটে নবাগত ওসি’র যোগদানের পর কমেছে অপরাধ বেড়েছে মানুষের আস্থা

Loading Facebook Comments ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *