এলাকায় ব্যাপক তোলপাড়ঃ পীরগঞ্জে ছাত্রকে বলাৎকার ও যৌন হয়রানী মাদ্রাসার মোহতামিমকে পদ থেকে অব্যাহতি

পীরগঞ্জে ছাত্রকে বলাৎকার ও যৌন হয়রানী মাদ্রাসার মোহতামিমকে পদ থেকে অব্যাহতি

আব্দুল করিম সরকার, পীরগঞ্জ(রংপুর) প্রতিনিধিঃ রংপুরের পীরগঞ্জে পত্নীচড়া হাফেজিয়া মাদ্রাসার মোহাত্তামির বিরুদ্ধে ছাত্রদের বলাৎকার ও যৌন হয়রানী করার অভিযোগে মাদ্রাসা কমিটি তাকে মোহাত্তামির পদ থেকে অব্যহতি দিয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার বড়আলমপুর ইউনিয়নের পত্নীচড়া মাদ্রাসায়।প্রকাশ স্থানীয় অভিভাবক ও ছাত্ররা জানান পপত্নীচড়া মাদ্রাসায় দিনাজপুর জেলাধীন বিরামপুর উপজেলার চরকাই গ্রামের হাফেজ মওলানা হযরত আলী হুজুর প্রায় ২ বৎসর পূর্বে উক্ত মাদ্রাসার মোহাত্তামিম পদে নিয়োগ পান।এদিকে অভিযোগ উঠেছে নিয়োগ প্রাপ্ত হওয়ার পর থেকেই রাতের বেলা একেকদিন এক ছাত্রকে ডেকে নিয়ে তার শরীর টিপে নিতেন এবং মোবাইলে পর্ণগ্রাফী দেখতেন এবং দেখাতেন। শুধু তাই নয় উক্ত হুজুর ছাত্রদের সাথে যৌন সম্পর্কিত আলোচনা ইয়ার্কি ফাজলামি করতেন। এরই সুযোগে মোহাত্তামিম দিনেরপর দিন ছাত্রদের সাথে যৌন সম্পর্ক গড়ে তোলেন বিষয়টি কানাকানি থেকে গুঞ্জনের সৃষ্টি হলে ছাত্রদের বলাৎকারের ঘটনাটি এলাকায় ব্যাপক তোলপাড়ের সৃষ্টি হয়।একপর্যায়ে গত শনিবার দুপুরে মাদ্রাসা কমিটি ও ইউনিয়ন আ’লীগের সভাপতি জাহাঙ্গীর আলম মাষ্টার মোহতামিম হযরত আলীকে কানধরে উঠাবসা করে মোটা অংকের উৎকোচের বিনিময়ে তাকে ওই পদ থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়। অভিভাবক হালিম মিয়া, হাশেম আলী, কোরবান আলী জানান মাদ্রাসা কমিটি আমাদের কোন কথা না শুনেই হুজুরের দফা রফা করে হুজুরকে ছেড়ে দেয় ওই দিনেই আমাদের সন্তানদের আমরা মাদ্রাসা থেকে বাড়ীতে নিয়ে আসি। ছাত্র মহিদুল ইসলাম জানান হুজুর প্রায়রাতে রাত্রে  সোহাগ, জোবায়ের, মনির ও হাফিজুরকে তার রুমে নিয়ে গিয়ে যৌন হয়রানি করে। আমরা শুক্রবার সব ছাত্র ঐক্যবদ্ধ হয়ে স্থানীয় এক ছাত্রের নিকট থেকে টাকা ধার নিয়ে বাড়ীতে আসি। এ ব্যাপারে স্থানীয় আ’লীগ নেতা জাহাঙ্গীর আলম মাষ্টার জানান কমিটির সিদ্ধান্ত অনুযায়ী হুজুরকে কান ধরে উঠাবসা করে মাদ্রাসার পদ থেকে তাকে অব্যাহতি দেওয়া হয়, তবে টাকা লেনদেনের বিষয়টি অস্বীকার করেন। এ বিষয়ে নতুন যোগদানকারী মোহতামিম আশিকুর মওলা জানান, গত রবিবার আমি যোগদান করেছি এ বিষয়ে আমি অবগত নই। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে মাদ্রসায় ছাত্রদের শুন্যতা বিরাজ করছে।

Loading Facebook Comments ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *