জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে সিরিজের প্রথম ওয়ানডে টাইগারদের জয়

জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে সিরিজের প্রথম ওয়ানডে টাইগারদের জয়

জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে সিরিজের প্রথম ওয়ানডে জয় পেয়েছে বাংলাদেশ। রোববার মিরপুরে ইমরুল কায়েসের ক্যারিরিয়ার সেরা সেঞ্চুরির ওপর ভর করে ২৮ রানে জিতেছে মাশরাফি টিম বাংলাদেশ। এ জয়ের ফলে তিন ম্যাচ ওয়ানডে সিরিজে ১-০ তে এগিয়ে গেল স্বাগতিকরা। আগামী ২৪ ও ২৬ অক্টোবর সিরিজের বাকি দুটি ওয়ানডে অনুষ্ঠিত হবে চট্টগ্রাম জহুর আহম্মেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে।

টাইগারদের বিপক্ষে ২৭২ রানের টার্গেটে ব্যাটিংয়ে নেমে শুরুটা ভালোই করেছিল জিম্বাবুয়ে। অবশেষে নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৯ উইকেটে ২৪৩ রান সংগ্রহ করে সফরকারীরা। এ দিন মাশরাফি-মিরাজের প্রথম স্পেলে সফলতা পায় তারা। তবে দলীয় অষ্টম ওভারে কাটার মাস্টার মোস্তাফিজুর রহমান এসেই বাজিমাত করেন। চিপহাস জুহওয়াওকে ব্যাট-প্যাডের ফাঁক গলিয়ে বোল্ড করেন তিনি। ২৪ বলে ৪টি চার ও ২টি ছক্কায় ৩৫ করে ভয়ংকর হয়ে ওঠা এই বাঁহাতিকে মাঠ ছাড়া করান।

পরে দলীয় ১১ ও নিজের দ্বিতীয় ওভারে নতুন ব্যাটসম্যান ব্র্যান্ডন টেইলরকে সরাসরি বোল্ড করেন বিষাক্ত স্পিনার নাজমুল ইসলাম অপু। এরপর দারুণ এক রান আউট করে জিম্বাবুয়ের অধিনায়ক হ্যামিল্টন মাসাকাদজাকে ফেরালেন মুশফিকুর রহিম। ৩৪ বলে ২১ রান করেন সফরকারী দলনেতা।

জিম্বাবুয়ের ভরসা ব্যাটসম্যান সিকান্দার রাজাকে সরাসরি বোল্ড করে মাঠ ছাড়া করেন নাজমুল ইসলাম অপু। ২১তম ওভারের শেষ বলে দলীয় ৮৮ রানে অপুর দ্বিতীয় শিকার হয়ে ফেরেন রাজা (৭)। এরপর দলীয় ১০০ রানের মাথায় মিরাজের বলে ক্রেগ আরভিন ব্যক্তিগত ২৪ রানে সরাসরি বোল্ড হন।

এরপর শন উইলিয়ামস ও পিটার মুর ৪৫ রানে জুটি গড়েন। অবশেষে এই জুটি ভাঙেন স্পিনার মেহেদী হাসান মিরাজ। মুর ব্যক্তিগত ২৬ রানে মিরাজের বলে এলিবিডাব্লিউর শিকার হন। তিন রান পরেই ডোনাল্ড তিরিপানোকে (২) রানআউট করেন ফজলে মাহমুদ।

নবম উইকেট জুটিতে শন উইলিয়ামস ও কাইল জারভিস ঘুড়ে দাঁড়ায়। দলের পক্ষে শেষ চেষ্টা করেন তারা। কিন্তু শেষ ১২ বলে জয়ের জন্য জিম্বাবুয়ের প্রয়োজন হয় ৪৯ রান। অবশেষে ৪৯তম ওভারে তাদের ৬৭ রানে জুটি ভাঙেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। ৩৩ বলে ৩৭ রান করে মুশফিকের তালুবন্দি হন তিনি। তবে উইলিয়ামস ৫০ রানে অপরাজিত থাকেন। বল হাতে মেহেদী হাসান মিরাজ ১০ ওভারে ৪৬ রানে নেন তিনটি উইকেট। এছাড়া নাজমুল ইসলাম অপু ৮ ওভারে ৩৮ রানে দুটি।

এর আগে রোববার মিরপুরে ইমরুল ও সাইফউদ্দিনের ক্যারিয়ার সেরা ইনিংসের উপর ভর করে ৮ উইকেটে ২৭১ রান তোলে বাংলাদেশ। ওপেনার ইমরুল কায়েস (১৪৪) রানে অসাধারণ ইনিংস খেলেন। সপ্তম উইকেট জুটিতে এদিন সাইফউদ্দিনের সঙ্গে রেকর্ড ১২৭ রানের পার্টনারশিপ গড়েন ইমরুল।

দলীয় ১৬৬ রানের মাথায় ১৪৪ রান করে কাইল জারভিসের বলে ক্যাচ আউট হন ইমরুল। ১৪০ বলে ১৩টি বাউন্ডারি ও ৬টি বিশাল ছক্কায় তিনি এ রান করেন। এরপর নিজের ক্যারিয়ার সেরা প্রথম ওয়ানডে হাফসেঞ্চুরি করে সাজঘরে ফেরেন পেস অলরাউন্ডার সাইফউদ্দিন। ৬৯ বলে ৩ বাউন্ডারি ও এক ছক্কায় ৫০ করে বিদায নেন সাইফউদ্দিন। শেষ মুহূর্তে মাশরাফি বিন মুর্তজা ২ ও মুস্তাফিজুর রহমান ১ রান নিয়ে অপরাজিত থাকেন।

এর আগে লিটন ৪, ফরলে মাহমুদ শূন্য, মোহাম্মদ মিঠুন ৩৭ মাহমুদউল্লাহ শুন্য ও মিরাজ ১ রান করে বিদায় নেন। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে তিন ম্যাচ ওয়ানডে সিরিজের প্রথম ওয়ানডেতে ১২৯তম বাংলাদেশি ক্রিকেটার হিসেবে অভিষেক হলো ৩০ বছর বয়সী রাব্বির।

Loading Facebook Comments ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *