গাইবান্ধায় কৃষকদের থেকে অতিরিক্ত সেচমূল্য আদায়ের অভিযোগ

পলাশবাড়ীতে প্রাথমিকে শিক্ষা উপকরণ ক্রয়ে অনিয়ম-দূর্নীতি

ছাদেকুল ইসলাম রুবেল,গাইবান্ধা ঃ চলতি মৌসুমে বোরো চাষে গাইবান্ধায় কৃষকদের কাছ থেকে পানি সরবরাহের অতিরিক্ত মূল্য আদায় করার অভিযোগ উঠেছে। ফলে মৌসুমের শুরু থেকেই আর্থিক ক্ষতির সম্মুখীন হচ্ছেন কৃষকরা।
এখানে প্রতি বিঘা জমির সেচের জন্য মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে ১ হাজার ৮শ টাকা থেকে ২ হাজার ৫শ টাকা পর্যন্ত।
কৃষি বিভাগ সূত্রে জানা যায়, গাইবান্ধা জেলায় চলতি মওসুমে ১ লাখ, ২৭ হাজার, ৭শ ৪০ হেক্টর জমিতে বোরো চাষের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। ইতিমধ্যে ১ লাখ ১২ হাজার ৯শ ৭৫ হেক্টর জমিতে বোরো চাষ অব্যাহত রয়েছে।
বর্তমানে গাইবান্ধার সাত উপজেলায় বোরো ধান রোপণের কাজ প্রায় শেষ হয়ে আসছে। অথচ নানা কারণে উপজেলা সেচ কমিটির পক্ষ থেকে এখন পর্যন্ত পানির সেচমূল্য নির্ধারণ করা হয়নি। এই সুযোগ বুঝে কৃষকদের কাছ থেকে অতিরিক্ত টাকা হাতিয়ে নিচ্ছেন গভীর ও অগভীর নলকূপের দায়িত্বপ্রাপ্ত ব্যক্তিরা। সুযোগ বুঝে নলকূপের মালিকদের দেখাদেখি ডিজেল চালিত ব্যক্তি মালিকানাধীন নলকূপের পানির মূল্যও বাড়িয়ে দেয়া হয়েছে।
একাধিক কৃষকের অভিযোগ, বরেন্দ্র বহুমুখী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ তাদের আওতাধীন গভীর নলকূপের সেচের মূল্য নির্ধারণ করেছে প্রতি ঘণ্টায় ১১০ টাকা। এছাড়া পুরো মৌসুমে প্রতি বিঘা জমির সেচ মূল্য নির্ধারণ করা হয় ১ হাজার ২৫০ টাকা। কিন্তু বরেন্দ্র প্রকল্পের আওতাধীন গভীর নলকূপের মালিকরা তা মানছেন না। তারা ঘণ্টাভিত্তিক সেচ দিতে রাজি নন। তারা বরেন্দ্র কর্তৃপক্ষের নির্ধারিত মূল্য সম্পর্কে কৃষকদের জানায় না। ওই তথ্য গোপন করে কৃষকদের কাছ থেকে প্রতিবিঘায় তারা ২ হাজার ৫শ টাকা পর্যন্ত আদায় করছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।
এতে প্রতি বিঘায় বোরো চাষে কৃষকদেরকে সেচের জন্য অতিরিক্ত টাকা দিতে হচ্ছে। ফলে বিঘা প্রতি উৎপাদন খরচ বেড়ে যাচ্ছে।
এ ব্যাপারে বরেন্দ্র বহুমুখী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের গাইবান্ধার নির্বাহী প্রকৌশলী এজাদুল ইসলাম বলেন, এ ধরনের অভিযোগ আমি শুনেছি। বিষয়টি আমলে নিয়ে আমরা তদন্ত কাজ শুরু করেছি। তাদের আওতাধীন নলকুপ মালিকদের বেশি মূল্য নেয়ার অভিযোগ প্রমাণিত হলে তাদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানিয়েছেন তিনি।

Loading Facebook Comments ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *