থাই গুহা থেকে উদ্ধার ৬ কিশোর: ১০ ঘণ্টার জন্য অভিযান স্থগিত

থাই গুহা থেকে উদ্ধার ৬ কিশোর: ১০ ঘণ্টার জন্য অভিযান স্থগিত

থাইল্যান্ডে গুহায় আটকেপড়া ১২ কিশোর ফুটবলারের মধ্যে ছয় জনকে উদ্ধার করা হয়েছে বলে জানিয়েছে আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমগুলো। তাদের হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। আগামী ১০ ঘণ্টার জন্য উদ্ধার অভিযান স্থগিত করা হয়েছে। সংবাদ: এনডিটিভি।

রোববার স্থানীয় সময় সকাল ১০টায় শুরু হওয়া এ উদ্ধার অভিযানে অংশ নিয়েছেন পাঁচ সদস্যের থাইল্যান্ডের এলিট নেভি সিল ও ১৩ জন বিদেশি ডুবুরী।

এর আগে, দুই সপ্তাহ আগে তারা গুহাটিতে প্রবেশ করে হারিয়ে গিয়েছিল। অনেক অনুসন্ধানের পর তাদের খুঁজে পেলেও উদ্ধার করা ছিলো অত্যন্ত কঠিন। সেই কঠিন কাজটিই অবশেষে সফলতার মুখ দেখতে শুরু করেছে।

স্থানীয় কর্মকর্তার বরাত দিয়ে গার্ডিয়ান জানিয়েছে, ছয় কিশোরকে নিরাপদে উদ্ধার করে আনা হয়েছে। অন্যদের উদ্ধারের তৎপরতা চলছে। শীঘ্রই সংবাদ সম্মেলনে আনুষ্ঠানিকভাবে বিষয়টি জানাবেন কর্মকর্তার।

এদিকে গুহার বাইরে বৃষ্টি শুরু হওয়ায় বিশ্লেষকরা ধারণা করছেন, উদ্ধার কার্যক্রমে বিঘ্ন ঘটতে পারে।

উদ্ধারকাজে অংশ নেয়া  মোট ৯০ জন উদ্ধারকারীর মধ্যে ৫০ জন বিদেশি, বাকিরা থাইল্যান্ডের।

সামাজিকে যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়া ভিডিওতে দেখা গেছে, দুটি অ্যাম্বুলেন্স ও একটি হেলিকপ্টার ওই স্থান থেকে চলে গেছে নিকটস্থ শহরের দিকে। উদ্ধারকৃতদের কিভাবে হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে তার এখনো নিশ্চিত হওয়া যায়নি। বিবিসি জানিয়েছে, স্থানীয় হাসপাতালটি ওই স্থান থেকে সড়ক পথে একঘণ্টার দূরত্বে। কিশোরদের পরিবারগুলো সেখানে অপেক্ষা করছে প্রিয় সন্তানদের জন্য।

বাংলাদেশ সময় সন্ধ্যা ছয়টার দিকে ওই দুই কিশোরকে বের করে আনা হয়। মোট আঠারো জন ডাইভার এই উদ্ধার অভিযানে অংশ নিচ্ছেন। দলের সাথে থাকা অস্ট্রেলীয় চিকিৎসকের পরামর্শে দুর্বল হয়ে পড়া কিশোরদের আগে বের করা হচ্ছে।

থাই সেনাবাহিনীর এক কর্মকর্তা জানিয়েছেন, আরো চার কিশোর অল্প সময়ের ব্যবধানে হেঁটে বাইরে আসবে। তারা সফলভাবে ডাইভারদের বেস ক্যাম্পে এসে পৌছেছে। লেফট্যানেন্ট জেনারেল কংচিপ তানত্রাওয়ানিত সাংবাদিকদের বলেন, ‘ডাইভারদের তিন নম্বর চেম্বারে এসে পৌছেছে চার কিশোর, তারা অল্প সময়ের মধ্যে হেঁটে বাইরে আসবে’।

বন্যার পানিতে নিমজ্জিত গুহার যে শুকনো উঁচু জায়গাটিতে গত দু সপ্তাহ ধরে এই দলটি আশ্রয় নিয়ে আছে, তার উদ্দেশ্যে ১৮ জন অভিজ্ঞ ডুবুরি ইতোমধ্যেই রওয়ানা হয়েছে।

একেকজন কিশোরকে দুজন করে ডুবুরি তাদের তত্বাবধানে বের করে আনবেন। পুরো পথ পার হতে অন্তত ছয় ঘন্টা লাগবে। সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে আটকে পড়া ১৩ জনকে দুই থেকে তিন দিনের মধ্যে বের করে আনা যাবে বলে ধারণা করা হচ্ছে। তবে ঝুঁকির কথাও অস্বীকার করছেন না কর্তৃপক্ষ।

রোববার সকালে মায়ে সাই পর্বতমালার নিচে গুহার সুড়ঙ্গ দিয়ে চলে যাওয়া জলপথে নেমে পড়েন বিশেষজ্ঞ ১৩ ডুবুরি। উদ্ধারকারী দল স্থানীয় সময় সকাল ১০টায় গুহায় প্রবেশ করেছে বলে ঘটনাস্থলেই এক সংবাদ সম্মেলনে জানিয়েছেন একজন সরকারি কর্মকর্তা।

এর আগে উদ্ধারকারী দল, ডুবুরী, চিকিৎসক ও নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যদের রেখে বাকী সবাইকে ঘটনাস্থল থেকে সরিয়ে নেয়া হয়।

Loading Facebook Comments ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *